• ঢাকা
  • সোমবার, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৭ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েনের হুমকি দিলেন পুতিন


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ০৬ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৮:২২ পিএম
রাশিয়ার পারমাণবিক নীতি
রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন

নিউজ ডেস্ক:  রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, যদি যুক্তরাষ্ট্র ও দেশটির পশ্চিমা মিত্ররা কিয়েভকে তাদের দেওয়া দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে রাশিয়ার ভেতরে হামলা চালাতে অনুমতি দেয়, তাহলে তিনিও পশ্চিমে আঘাত করার মতো দূরত্বে ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করবেন। বুধবার তিনি এ কথা বলেন।

ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের জ্যেষ্ঠ সম্পাদকদের সঙ্গে প্রথমবারের মতো সামনাসামনি আলোচনা করেন পুতিন। এ সময় পুতিন বলেন, রাশিয়া কখনোই পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার করবে না পশ্চিমা বিশ্বের এমন অনুমান ভুল। পুতিন সতর্ক করে আরও বলেন, রাশিয়ার পারমাণবিক নীতিকে হালকাভাবে দেখার কোনো সুযোগ নেই।

পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর প্রধান জেনস স্টলটেনবার্গ রাশিয়ার ভূখণ্ডে পশ্চিমা অস্ত্র ব্যবহারে ইউক্রেনকে অনুমতি দেওয়ার বিষয়ে কথা বলেছেন। বিষয়টি নিয়ে পুতিনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে রুশ প্রেসিডেন্ট বলেন, পশ্চিমা ক্ষেপণাস্ত্র বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের এটিএসিএমএস এবং ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা ভূপাতিত করা হবে।

পুতিন জানান, একই ধরনের উচ্চ প্রযুক্তির ও দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েনের চিন্তাভাবনা করছে মস্কো। বিশেষ করে রুশ ভূখণ্ডে হামলা চালাতে ইউক্রেনকে অনুমতি দেওয়া পশ্চিমা দেশগুলোর অভিমুখে নির্দিষ্ট দূরত্বে এসব ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েনের চিন্তা করা হচ্ছে।

যদি এসব পশ্চিমা দেশ রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চায়, তাহলে আমাদেরও একই ধরনের আচরণ করার অধিকার রয়েছে। এমনটাই মন্তব্য করেছেন পুতিন। তিনি বলেন, এমনটা  হলে পরিস্থিতি খুবই জটিল হবে।

তবে রাশিয়ার পক্ষ থেকে কোথায় কোথায় ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে, সেই বিষয়ে প্রেসিডেন্ট পুতিন কিছুই জানাননি।

ইউক্রেন থেকে ন্যাটোকে চলে যেতে হবে—রাশিয়া তার অবস্থান থেকে পিছু হটবে না। কেবলমাত্র ইউক্রেনের নিরাপত্তা নিশ্চয়তার ব্যাপারে কিছুটা সম্মতি দিতে পারে রাশিয়া। ইউক্রেনের জন্য যুক্তরাষ্ট্র কি যুদ্ধ করতে যাবে?

রাশিয়ার ভূখণ্ডে আঘাত হানার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের অপেক্ষাকৃত দীর্ঘ পাল্লার অস্ত্র ব্যবহারের অনুমতি পেতে জোরালো আহ্বান জানাচ্ছিল ইউক্রেন। তবে যুক্তরাষ্ট্র তাতে সায় দেয়নি। তাদের আশঙ্কা, এতে মস্কোর সঙ্গে সরাসরি সংঘাতে জড়িয়ে পড়তে পারে ন্যাটো। তবে চলতি মাসে খারকিভ অঞ্চলে রুশ বাহিনী নতুন করে অভিযান শুরু করার পর এসব হিসাব–নিকাশ পাল্টে গেছে বলে মনে হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার একাধিক মার্কিন কর্মকর্তা জানান, খারকিভ অঞ্চলের সুরক্ষার স্বার্থে রাশিয়ায় হামলার জন্য মার্কিন অস্ত্র ব্যবহার করতে ইউক্রেনকে অনুমতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এইচ

আরো পড়ুন

banner image
banner image