• ঢাকা
  • বুধবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ; ২১ ফেরুয়ারী, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

বাইডেনের বিরুদ্ধে অভিসংশন প্রস্তাব পাস


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৯:৩৩ এএম
যুক্তরাষ্ট্র
আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন

নিউজ ডেস্ক: রিপাবলিকান পার্টি এখনও প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিরুদ্ধে কোনো প্রমাণ উপস্থাপন করেনি। ডেমোক্রেটিক পার্টি বাইডেন অভিশংসন প্রস্তাবকে ভিত্তিহীন রাজনৈতিক স্টান্ট বলেছেন।

মার্কিন কংগ্রেসে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রস্তাব অনুমোদন করেছে। মার্কিন কংগ্রেসে  অভিশংসন প্রস্তাবের পক্ষে ২২১ ভোট এবং বিপক্ষে ২১২ ভোট পড়ে। 

এই প্রস্তাবে বাইডেনের ছেলে হান্টার বাইডেনের বিতর্কিত আন্তর্জাতিক লেনদেনকে টার্গেট করা হয়েছে। হান্টারের বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের ভিত্তিতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এজন্য আনুষ্ঠানিক অভিশংসন তদন্ত শুরু করার প্রস্তাব করা হয়েছে। 

এই পদক্ষেপকে ভিত্তিহীন বলে অভিহিত করেছে ডেমোক্র্যাট পার্টি। রিপাবলিকান পার্টি এখনও প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বিরুদ্ধে কোনো প্রমাণ উপস্থাপন করেনি। 

অভিশংসন করে কোনো লাভ হবে না, কারণ মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে গেলেই প্রস্তাবটি নাকচ হয়ে যেতে পারে। সেখানে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সিনেটরের সংখ্যাই বেশি। তা সত্ত্বেও, অভিশংসন প্রস্তাব ২০২৪ সালের নির্বাচনে বাইডেনের জন্য সমস্যা তৈরি করতে পারে।

বাইডেন অভিশংসন প্রস্তাব বিষয়ে রিপাবলিকান পার্টির নিন্দা করেন। তিনি এই প্রস্তাবকে ভিত্তিহীন রাজনৈতিক স্টান্ট বলেছেন। বাইডেন বলেছেন, "আমেরিকান জনগণের দেশ ও বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য তাদের নেতার প্রয়োজন।"

বাইডেন রিপাবলিকান পার্টির বিরুদ্ধে ইউক্রেন ও ইসরায়েলে পাঠানো তহবিলকে বাধা দেওয়ার অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেন, "মঙ্গলবার আমি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সাথে দেখা করেছি যিনি তার জনগণকে রাশিয়ানদের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি আমেরিকায় সাহায্য চাইতে এসেছিলেন, কিন্তু কংগ্রেসে রিপাবলিকানরা তাকে সাহায্য করার জন্য কিছুই করছেন না।"

বাইডেন বলেছেন, "আমাদের দেশের দক্ষিণ সীমান্ত ঠিক করতে হবে, এর জন্য আমাদের অর্থের প্রয়োজন হবে, তবে সংসদে রিপাবলিকানরা আমাদের সাহায্য করার জন্য কিছুই করবে না।" 

তিনি বলেন, দেশের অর্থনীতিকে স্থিতিশীল রাখতে আমাদের অব্যাহতভাবে কাজ করতে হবে যাতে মূল্যস্ফীতির হার কমে যায়।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এসডি

আরো পড়ুন

banner image
banner image