• ঢাকা
  • সোমবার, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৫ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

মানবতার হোটেলে খেতে কোন টাকা লাগেনা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২৯ জানুয়ারী, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:২২ পিএম
খেতে কোন টাকা লাগেনা
মানবতার হোটেল

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি : আমাদের আশেপাশের অসহায়, ছিন্নমূল,  দিনমজুর, মানুষের কষ্ট দেখার মত নেই কেউ। তাদের অভাবের সংসার কীভাবে চলছে, আগামীতে কীভাবে চলবে, তারা তিন বেলা পেট পুরে খেতে পারছে না কিনা- এই সমস্ত কিছুর খবর রাখার মানুষ খুব কম। এ অল্প কিছু সংখ্যক মানুষ থাকে যারা সর্বদাই সমাজের অসহায়-অবহেলিত মানুষ নিয়ে ভাবেন।

কথাগুলো বলছেন নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার খালিশাচাপানী ইউনিয়নের কয়েক জন যুবক মিলে  প্রান্তিক মানুষদের নিয়ে কাজ করা পোভার্টি ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন  দ্বারা পরিচালিত  ভ্রাম্যমাণ  মানবতার হোটেল প্রতিষ্ঠিত করে। এখানে খেতে কোন টাকা লাগেনা।  দুস্থ, অসহায়, দিনমজুর মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। তাদের সকল কল্যাণকর কাজের মধ্যে ব্যতিক্রম একটি উদ্যোগ হচ্ছে  ভ্রাম্যমান‘ মানবতার  হোটেল’। মানবতার  হোটেলে খেতে কাউকে অর্থ নিয়ে চিন্তা করতে হয় না। এ উদ্যোগের মাধ্যমে যে যার মন মতো খাবার খেতে পারছেন।২৯জানুয়ারী(সোমবার) জেলা শহরের পিটিআই মোড়ে  দুপুর থেকে শুরু হয়   পেটের দায়ে পরিশ্রম করে বেড়ায়, অসহায় হতদরিদ্র, ছিন্নমূল  তাদের জন্যই ভ্রাম্যমাণ  ‘মানবতার হোটেল’-এর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।মানবতার হোটেল এর পরিচালক’- জানান, যে কেউই এই হোটেল থেকে আহার করতে পারে। অর্থ এই হোটেলের মুখ্য বিষয় নয়, মানুষের ভালোবাসা এবং হাসিমুখের অনুপ্রেরণাই তাদের মুখ্য উদ্দেশ্য।

প্রতিষ্ঠানটির ফেসবুক পেজ ঘুরে দেখা গেছে, এভাবে নীলফামারী জেলার বিভিন্ন এলাকায়  অসহায়-দুস্থদের নিয়েই তারা কাজ করছেন। মানবতার  হোটেলের বাইরেও প্লাস্টিকের বিনিমিয়ে বইয়ের ক্যাম্পেইন, পছন্দের খাবার কিনে দেয়া, বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে দাড়ানো থেকে শুরু করে বিভিন্ন কর্মসূচি করছে প্রতিষ্ঠানটি।মানবতার  হোটেলের খাবার গ্রহণকালে আমিনুর রহমান  (ছদ্মনাম) বলেন, ‘‘ভাই আমারে কি  আর একটু ভাত  দিবেন? খুব মজা লাগছে খাওনডা। আমার আম্মা অনেক কষ্ট কইরা কাম কইরা আমাগোরে খাওয়ায়, আম্মা হাত দিয়া ভাত-ডাউল খাওয়ায় দিলে অইডার চেয়ে মজা আর কিছু লাগে না’’।

কথা হয় ‘পাশে আছি পোভার্টি ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠানের পরিচালনায় মানবতার হোটেল  এর একজন উদ্যোক্তা  আবু তালেব এর  সাথে। তিনি বলেন,২০১৮সালের শুরুর দিকে  থেকে কাজ শুরু করেছি। আমরা  কয়েক জন  মিলে গড়ে তুলেছি এই সংগঠন। এখন আমাদের সংগঠনে ৪০ জন ভলেন্টিয়ার পরিশ্রম করছে সাধারণ মানুষের জন্য।

মানবতার  হোটেল সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা মলূত আমাদের ইচ্ছার জায়গা থেকেই চালু করা। আমরা সবাই দেখি যে যাদের টাকা-পায়সা তারা বিভিন্ন হোটেলে খাবার খায়। কিন্তু যাদের টাকা নেই অভাবের সংসার তাদের হোটেল তো দূরের কথা নিজ বাড়িতে সবাইকে নিয়ে খাওয়ার সামর্থ্য থাকে না।

তিনি আরো বলেন, আমরা তখনই মানবতার  হোটেলের আয়োজন করি। তখন মানুষ উৎসাহ সহকারে অংশগ্রহণ করে আমাদের এই আয়োজনে অসহায় মানুষগুলো হাসি মুখে খাওয়া-দাওয়া করে। আমরাও চেষ্টা করি মানসম্মত খাবার পরিবেশন করার। আমরা মানুষের কাছে অনেক সাড়াও পাচ্ছি। যার ফলে আমরা ভালো ফান্ডও পাচ্ছি।ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাইলে তুহিন ইসলাম  বলেন, আমাদের কোনদিনই ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ছিলো না। আমাদের যখন মনে হচ্ছে আমরা এটা করতে পারি। আমরা সেটাই করার চেষ্টা করছি। মূল কথা আমরা সব সময় চেষ্টা করছি মানুষের পাশে থেকে কাজ করার। আমরা এভাবেই এগিয়ে যেতে চাই।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image