• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২৫ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

লিজগ্রহীতাকে না জানিয়ে সম্পত্তি বিক্রির অভিযোগ 


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ০৩ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৭:৩২ পিএম
লিজগ্রহীতাকে না জানিয়ে
সম্পত্তি বিক্রির অভিযোগ 

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: লিজগ্রহীতাকে না জানিয়ে সম্পত্তি বিক্রির-অভিযোগ কিশোরগঞ্জ জেলা পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে রোববার দুপুরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ছেন লিজগ্রহীতা মোজাম্মেল হক। 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ব্যবসায়ী মোজাম্মেল জানান, জমির মালিক আবুল কালাম গোপনে চলতি বছরের ৩ মার্চ লিজ দেয়া জমির মধ্যে সাড়ে তিন শতাংশ অন্যত্র বিক্রি করে দেন। শুধু তাই নয়, গত ১৬ এপ্রিল জমির মালিকের নেতৃত্বে লিজগ্রহীতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়। 

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় লিজগ্রহীতাকে না জানিয়েই লিজ দেয়া সম্পত্তি বিক্রি করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে অবসরপ্রাপ্ত এক সরকারি কর্মচারীর বিরুদ্ধে। জেলা পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে রোববার দুপুরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন মোজাম্মেল হক নামের এক ব্যবসায়ী। মোজাম্মেলের বাড়ি পাকুন্দিয়ার পাটুয়াভাঙ্গা বাগপাড়া এলাকায়।  

অভিযুক্ত আবুল কালামও একই এলাকার বাসিন্দা। তিনি অবসরপ্রাপ্ত পেশকার। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ব্যবসায়ী মোজাম্মেল জানান, ২০১৯ সালের ১ মার্চ তার প্রতিবেশী অবসরপ্রাপ্ত পেশকার আবুল কালামের কাছ থেকে ৬৪ শতাংশ জমি ১০ বছরের জন্য লিজ নেন তিনি। লিজের চুক্তি অনুযায়ী ৮ লাখ ২০ হাজার টাকা এককালীন পরিশোধ করেন। লিজের ৬৪ শতাংশ জমির মধ্যে পাটুয়াভাঙ্গা দরগাবাজারে ৪৪ শতাংশ জমিতে স্থাপনা নির্মাণ করে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন মোজাম্মেল। তার ভাষ্য, জমির মালিক আবুল কালাম গোপনে চলতি বছরের ৩ মার্চ লিজ দেয়া জমির মধ্যে সাড়ে তিন শতাংশ অন্যত্র বিক্রি করে দেন। শুধু তাই নয়, গত ১৬ এপ্রিল জমির মালিকের নেতৃত্বে লিজগ্রহীতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক ভাঙচুর করা হয়।

এ ঘটনায় আদালতে একটি মামলা করার কথা জানিয়ে লিজগ্রহীতা মোজাম্মেল বলেন, মামলা করার পর থেকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হচ্ছে। তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। জানতে চাইলে জমির মালিক পেশকার আবুল কালাম এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘লিজের চুক্তি ভঙ্গ করে লিজগ্রহীতা জমি অন্যত্র ভাড়া দিয়েছেন। ফলে তাকে উচ্ছেদের জন্য উকিল নোটিশ পাঠিয়েছি। ‘যে জমি আমি বিক্রি করেছি, সেটা লিজগ্রহীতার সম্মতিতেই বিক্রি করা হয়েছে। লিজগ্রহীতার দোকানের যে অংশটুকু ভাঙা হয়েছে, সেটার উপযুক্ত ক্ষতিপূরণও তাকে দেয়া হয়েছে।’
 

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image