• ঢাকা
  • রবিবার, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৬ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

আমান-শিলাস্তিদের আদালতে নেয়া হচ্ছে, রিমান্ড চাইবে পুলিশ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০২:৩৩ পিএম
আমান-শিলাস্তিদের আদালতে নেয়া হচ্ছে
রিমান্ড চাইবে পুলিশ

নিউজ ডেস্ক : ভারতে খুন হওয়া ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার তিন আসামিকে আদালতে তোলা হবে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ শুক্রবার (২৪ মে) দুপুরে আদালতে হাজির করার পর তাদের রিমান্ডের আবেদন করবে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন-  শিলাস্তি রহমান, কিলিং মিশনের প্রধান শিমুল ভূঁইয়া ওরফে আমানুল্লাহ আমান ও তার সহযোগী তানভীর ভূঁইয়া।
 
এক সংবাদ সম্মেলনে বৃহস্পতিবার (২৩ মে) ডিবি প্রধান হারুন অর রশিদ জানিয়েছেন, গ্রেফতাররা প্রত্যেকেই আনোয়ারুল আজিম হত্যাকাণ্ডে এবং তার মরদেহ গুম করার কাজে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত ছিলেন। হত্যাকাণ্ডটি ভারতে সংঘটিত হওয়ায় এরইমধ্যে ভারতের ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চের একটি প্রতিনিধি দলও ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে এসে গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।
 
আনার হত্যার মাস্টারমাইন্ড বলা হচ্ছে তারই ঘনিষ্ঠ বন্ধু আক্তারুজ্জামান শাহীনকে। ঝিনাইদহের কোর্ট চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র শহিদুজ্জামান সেলিমের ভাই তিনি। যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত শাহিন হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেন তবে কলকাতার নিউটাউনের সঞ্জিভা গার্ডেনের ৫৬বিইউ ফ্ল্যাটটি ভাড়া নেয়ার কথা স্বীকার করেন তিনি।
 
হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তিনি কোনোভাবেই জড়িত নন। তাকে ফাঁসানো হয়েছে। তাই তিনি আইনের আশ্রয় নেবেন তার দাবি।
  
বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সিআইডি জানায়, জিহাদ অবৈধভাবে মুম্বাইয়ে বসবাস করতেন। দুমাস আগে সংসদ সদস্য আনারকে হত্যার জন্য কলকাতায় আনে আখতারুজ্জান শাহীন। খুনের সময় আরও চার বাংলাদেশি ওই ফ্ল্যাটে ছিলেন। কিলিং মিশন শেষে মরদেহ টুকরো টুকরো করে প্লাস্টিকের ব্যাগে ভরে গুম করা হয় বলে জানান জিহাদ। আজ (শুক্রবার) উত্তর চব্বিশ পরগনার বারাসাত আদালতে জিহাদকে তোলা হবে বলে জানিয়েছে সিআইডি।

আনার হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে জিহাদ হাওলাদার জিহাদ নামে আরও এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ (সিআইডি)। তিনি খুলনার দিঘলিয়া থানার বারাকপুর গ্রামের জয়নাল হাওলাদার।
 
 সিআইডি রাতেই আটক ক্যাব চালককে নিয়ে সংসদ সদস্য আনারের খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধারে কলকাতায় অভিযানে নামে।
  
ক্যাব চালক জোবায়ের স্বীকারোক্তিতে জানান, সংসদ সদস্য আনারের লাশ গুমের সময় তিন জন উঠেছিলেন ওই ক্যাবে। এরপর নানা পরিকল্পনা করে মরদেহ ফেলা হয় কৃষ্ণমাটি এলাকায়। মরদেহ গুম করতে ব্যবহৃত সাদা রঙের ওই গাড়ি জব্দ করেছে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে কলকাতার কাশিপুর থানার অন্তর্গত ভাঙ্গরের কৃষ্ণমাটি এলাকায় অভিযানে যায় গোয়েন্দা পুলিশ। পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে তারা। সরিয়ে দেয়া হয় আশপাশের লোকজনকে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image