• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৮ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

আরতদাড়ের সাথে বিরোধ, রহনপুর বাজারে আম বিক্রি বন্ধ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ০৮ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৯:০২ পিএম
রহনপুর আমচাষি সমিতি
রহনপুর বাজারে আম বিক্রি বন্ধ

নিউজ ডেস্ক:  আম চাষিরা আমের মণ সর্বোচ্চ ৪৮ কেজি করার দাবিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর বাজারে বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছেন।শনিবার সকাল থেকে এ অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। আম চাষিদের দাবি, আমের ওজন মণে কোনোভাবেই ৪০ থেকে ৪৮ কেজির উপরে দেওয়া সম্ভব নয়।

রংপুরের আমচাষি পারভেজ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বাজারে গত ১৫ দিন ধরে আম বিক্রি শুরু হলেও বিষয়টি এখনো সুরাহা হয়নি। আম চাষিদের জিম্মি করে ৫২ কেজিতে মণ ধরে আম কিনছেন আড়তদাররা। এতে আম চাষিরা জিম্মি হয়ে পড়েছেন।

আম বিক্রি বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রহনপুর আমচাষি সমিতির সভাপতি মো মইনুল ইসলাম বিশ্বাস। তিনি জানান, এ বছর এমনিতেই আমের দাম অনেক বেশি, তাছাড়া আমের উৎপাদন কম হয়েছে। তারপরও চাষিদের জিম্মি করে এক মণ আমের জায়গায় ৫২ কেজি আম দিতে বাধ্য করছেন আড়তদাররা। এ অবস্থায় সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত আম বেচা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আম আড়তদার সমিতির সভাপতি আব্দুল আজিজ জানান, আম চাষিরা গায়ের জোরে এ ধরনের আন্দোলন করছেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় এক ওজন নীতি চালু না হলে আম কেনাবেচা করা সম্ভব নয়। তার দাবি কানসাট, নওগাঁর সাপাহার আম বাজারে ৫২ কেজি এবং ভোলাহাট আম বাজারে ৫৪ কেজিতে মণ ধরে কেনাবেচা হচ্ছে। এমনকি, কাঁচামাল হওয়ার কারণে সারাদেশেই কাঁচামাল পণ্য বাড়তি ওজনে কেনাবেচা হয়। বিশেষ করে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সবকটি বাজারে এক ওজন নীতি চালু করা হলে রোহনপুর বাজারে এই নীতি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নিশাত আনজুম অনন্যা জানান, সকাল থেকে ওজন জটিলতায় আম কেনাবেচা বন্ধ রয়েছে। বিষয়টি সুরাহা করতে উভয়পক্ষকে নিয়ে এখন সভা চলছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসাট আম বাজার ওজন জটিলতার কারণে প্রায় ১৫ দিন আম কেনাবেচা বন্ধ ছিল।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এইচ

আরো পড়ুন

banner image
banner image