• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৪ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৮ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

নারী রাজনীতির অনুপ্রেরণা শেখ হাসিনা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বুধবার, ০৮ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:৩৬ পিএম
নারী, নেতৃত্ব
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

মোহাম্মদ রুবেল : স্বাধীনতার ৫২ বছরে বাংলাদেশে নারী উন্নয়ন ও অগ্রগতি হয়েছে উল্লেখযোগ্য হারে। নারীরা আজ শুধু রান্নাঘরে সীমাবদ্ধ নেই। দেশও চালাচ্ছেন নারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংসদের স্পীকারও নারী। শিক্ষামন্ত্রীসহ প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, জুডিশিয়ালের মতো গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বর্তমানে অবদান রাখছেন নারীরা। বিশেষ করে দেশে নারী শিক্ষায় সফলতা এখন ঈর্ষণীয়। অথচ রাজনৈতিক দলে নারীর প্রতিনিধিত্ব কম। বিশেষ করে  ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে নারীর অবস্থান মাত্র ২৫ শতাংশ। যা ২০০৮ সালের গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ  অনুসারে হওয়ার কথা  ৩৩ শতাংশ্।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, ২০০৮ সালে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে (আরপিও) রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য ২০২০ সালের মধ্যে সর্বস্তরে ৩৩ শতাংশ নারীর অংশগ্রহণের বাধ্যবাধকতা করে দেয়। এরপর অথচ ১৪ বছর পেরিয়ে গেলেও কোনো দলই সেই শর্ত পূরণের ধারে-কাছে যেতে পারেনি। এ অবস্থায় প্রশ্ন উঠেছে রাজনীতিতে কতটা এগুলো নারীরা? ক্ষোধ ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে? আর্ন্তজাতিক নারী দিবসে এই প্রশ্নই এখন বড় করে দেখা দিয়েছে।

দলীয় দপ্তর সুত্রে আরও জানা যায়, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সর্বশেষ কাউন্সিলে(ডিসেম্বর ২০২২)৭৯ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটিতে নারী রয়েছেন ২০ জন। এ হিসাবে কেন্দ্রীয় কমিটিতে নারীর অংশগ্রহণ ২৫ দশমিক ৩১ শতাংশ। দলটির ৮১ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কমিটির দুটি পদ শূন্য রয়েছে। দলটির শীর্ষ নেতা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এছাড়া দলটির সভাপতিমণ্ডলিতে ৩ জন, সম্পাদকমল্ডলিতে ৭ জন ও কেন্দ্রীয় সদস্য পদে ৯ জন নারী রয়েছে। এর বাইরে আওয়ামী লীগের ৪৫ জন উপদেষ্টা পরিষদ সদস্যের মধ্যে নারী রয়েছে ৫ জন।

আরও জানা যায়, আওয়ামী লীগের ২০০৯-২০১২ কমিটির ৭৫ সদস্যের মধ্যে নারী ছিলেন ১১ জন, যা শতকরা ১৪.৬৭ শতাংশ। ২০১২-২০১৬ কমিটির ৭৫ সদস্যের মধ্যে নারী ছিলেন ১১ জন, যা শতকরা ১৪.৬৭ শতাংশ। ২০১৬-২০১৯ কমিটির ৭৮ সদস্যের মধ্যে নারী ছিলেন ১৬ জন, যার শতকরা ২০.০৫ শতাংশ।

তবে আওামীর লীগের নারী নেত্রীরা বলছেন, নারীদের শিক্ষায় বেগম রোকেয়া যেমন ভূমিকা রেখেছিলেন ঠিক তেমনি কর্মক্ষেত্র ও রাজনীতিতে নারীদের অংশগ্রহণে বিশেষ ভূমিকা রাখছেন বঙ্গবন্ধুর কন্যা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অতীতের তুলনায় বর্তমানে রাজনীতিতে নারীদের অংশগ্রহণ ব্যাপক বেড়েছে। সভা, সমাবেশ ও মিছিলে পুরুষদের সঙ্গে অংশ নিচ্ছেন নারীরাও। যেখানে রাজনৈতিক কর্মসূচি সেখানেই মিলছে নারীদের উপস্থিতি। শেখ হাসিনার রাজনৈতিক প্রজ্ঞা দেখে অনেকে যুক্ত হচ্ছেন রাজনীতিতে। তৃণমূল রাজনীতিতেও নারীরা বেশ সক্রিয় হচ্ছেন।

জানতে চাইলে কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক উম্মে কুলসুম স্মৃতি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় সব ক্ষেত্রে তাদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করার সুযোগ দিচ্ছেন। গত ১৪ বছরে নারীদের অধিকার সবচেয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এবং হচ্ছে্। তৃণমূলেও অনেক নারী কৃষক লীগের সংগঠনের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

যুব মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল বলেন, নারীরা বর্তমানে সফল হচ্ছে। তাদের সফলতার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করছেন। নারীরা আজ বিভিন্ন জায়গায় নিজেদের অবস্থান তৈরি করে নিচ্ছেন। কেউ বিমান চালাচ্ছেন, কেউ সচিব হয়েছেন, কেউ আবার কূটনীতিক হয়েছেন। নারীরা আজ বুদ্ধিমত্তা দিয়ে পুরুষের পাশাপাশি কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, এখন নারীরা তৃণমূল থেকে নির্বাচন করে। গ্রাম থেকে শহর—কোনো ক্ষেত্রেই নারীরা পিছিয়ে নেই। সব দল নারীদের কোটা পূরণ করলে রাজনীতিতে নারীর অংশগ্রহণ আরও বাড়বে্। সেক্ষেত্রে আগামীতে এটার ব্যাপকতা বাড়বে।

সংগঠনটির সাবেক সভাপতি নাজমা আক্তার বলেন, অতীতের সঙ্গে তুলনা করলে দেখা যাবে দেশের রাজনীতিতেও নারীরা সফল। আমি যে রাজনীতিতে এসেছি, যুদ্ধ করলাম, কাজ করলাম—এটা কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অনুসরণ করেই।

 

 

ঢাকানিউজ২৪.কম / এম আর

আরো পড়ুন

banner image
banner image