• ঢাকা
  • শনিবার, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২২ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের নিয়ন্ত্রণে ফের মধ্যপন্থিরা, কট্টরপন্হীদের উত্থান


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১১ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৯:৫৭ পিএম
তার সরকার আরও শক্তিশালী হয়েছে
প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডের লেয়েন

নিউজ ডেস্ক:  ইউরোপীয় ইউনিয়নের পার্লামেন্ট নির্বাচনে কট্টর ডানপন্থি দলগুলো বিপুলসংখ্যক আসন পেতে যাচ্ছে বলে যে পূর্বাভাস পাওয়া গেছে, ফলাফলে তেমন হলে তা হবে ব্রাসেলসের মূলধারার রাজনীতিকে বড় ধরনের ভ্রুকুটি দেখানো। এটি ইউরোপের ভবিষ্যৎ রাজনীতির গতিবিধিকেও অনিশ্চয়তায় ফেলবে। এ নির্বাচন ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর ওপর ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে। মধ্য ও বামপন্থিরা চিন্তায় পড়ে গেছেন; ডানপন্থিরা বুক চাপড়ে গর্ব করছেন। 

আকস্মিক আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাখোঁ। পদত্যাগ করেছেন বেলজিয়ান প্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্দার দ্য ক্রো। আর ইতালির জর্জিয়া মেলোনি বলছেন, তার সরকার আরও শক্তিশালী হয়েছে।

সোমবার সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭ সদস্য দেশের মধ্যে তিন দিন ধরে চলা ভোট গ্রহণের পর বুথফেরত জরিপে দেখা গেছে, পার্লামেন্টের ৭২০ আসনের মধ্যে কট্টর ডানপন্থিরা অন্তত ১৫০ আসনে জিততে যাচ্ছেন। এমনটি হলে মূলধারার দলগুলোর জন্য আইন পাস করতে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন সহজ হবে না।

রোববার ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডের লেয়েন জানান, নির্বাচনে তাঁর দল ইউরোপিয়ান পিপলস পার্টি বা ইপিপি সর্বোচ্চ আসন পেতে যাচ্ছে। ব্রাসেলসে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, মধ্যপন্থিদের জয় হচ্ছে। কিন্তু এটা সত্য, বাম ও ডান কট্টরপন্থিরা ব্যাপক সমর্থন অর্জনে সক্ষম হয়েছেন। এ কারণে মধ্যপন্থি দলগুলোর ওপর দায়িত্ব আরও বেড়ে গেল।

পশ্চিম ইউরোপের তিন দেশ ফ্রান্স, জার্মানি ও ইতালিতে এ ডানপন্থিদের উত্থান ঘটেছে। এ প্রেক্ষাপটে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল মাখোঁ পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নতুন নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন। আগাম এ নির্বাচনের প্রথম ধাপ আগামী ৩০ জুন অনুষ্ঠিত হবে। ইউরোপীয় পার্লামেন্টে ফ্রান্সের ম্যারিন লা পেনের ডানপন্থি দল ন্যাশনাল র্যা লির (আরএন) উত্থানের কারণে তিনি এ সিদ্ধান্ত নেন। এরই মধ্যে সাতটি দেশের ভোট গণনা শেষ হয়েছে। এতে দেখা যায়, ফ্রান্সে লা পেপের দল ৩৬ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে; মাখোঁর দল পেয়েছে ১৪ দশমিক ৬ শতাংশ। বিবিসির বিশ্লেষণে বলা হয়, বিস্ময় জাগিয়ে আগাম নির্বাচন দিয়ে বড় ধরনের ঝুঁকি নিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট। তিনি অন্যভাবেও প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারতেন।

এ পার্লামেন্ট নির্বাচন পরিবর্তন এনেছে বেলজিয়ামেও। সেখানে পদ ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্দার দ্য ক্রো। ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ও অভ্যন্তরীণ নির্বাচনে কাঙ্ক্ষিত ফল অর্জনে ব্যর্থ হওয়ায় স্থানীয় সময় রোববার সন্ধ্যায় তিনি এ ঘোষণা দেন। বেলজিয়ান প্রধানমন্ত্রী কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘এটা খুবই কঠিন এক সন্ধ্যা।’

বেলজিয়ানরা গত সপ্তাহে ইইউ পার্লামেন্টের পাশাপাশি দেশটির কেন্দ্রীয় ও আঞ্চলিক নির্বাচনেও ভোট দিয়েছেন। অভ্যন্তরীণভাবে বেলজিয়ামের বৃহত্তম উগ্র ডানপন্থি ভ্লামস বেলাং পার্টি বেশ ভালো করেছে। অন্যদিকে ক্রোর নেতৃত্বে সাত দলের ক্ষমতাসীন জোট সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখতে পারবে না বলে মনে করা হচ্ছে।

তবে এ নির্বাচনের ফল ইতালির প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনির জন্য সুখবর নিয়ে এসেছে। মেলোনির দল ব্রাদার্স অব ইতালি গ্রুপ ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচনে ভালো ফল করেছে। তারা ২৮ দশমিক ৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে। তিনি বলেন, তিনি গর্বিত যে ইতালি জি-৭ সম্মেলনে নিজেকে শক্তিশালী সরকার হিসেবে উপস্থাপন করতে পারবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এইচ

আরো পড়ুন

banner image
banner image