• ঢাকা
  • বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২২ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

পুলিশের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় দুইটি মামলা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৩০ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১১:৪৪ এএম
পুলিশের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় দুইটি মামলা
চেয়ারম্যান ওমর হুছাইন ভুলু

নাজমুল হোসেন, নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুর জেলার সদর উপজেলার ১৯ নং তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটের ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর ও সরকারি কাজে বাধা দেয়ার ঘটনায় ২টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গত রোববার (২৮ এপ্রিল) সকালে লক্ষ্মীপুর সদর থানায় পৃথক ২টি মামলা দায়ের করা হয়।

একটি মামলায় লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়ের চেয়ারম্যান ওমর হুছাইন ভুলুকে প্রধান করে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে ৪'শ থেকে ৫'শ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়।

অন্য আরেকটি মামলায় অজ্ঞাত ৪'শ থেকে ৫'শ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্র থেকে জানা যায় যে, গত রোববার সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের আঁধার মানিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটের বেসরকারি ভাবে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী আক্তার হোসেন বোরহান চৌধুরীর লোকজন পুলিশ ও আনসার সদস্যদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোড়ে। এতে রামগতি সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সাইফুল আলমের গাড়ি ভাঙচুর করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৪ রাউন্ড টিয়ার গ্যাস সেল এবং ২ রাউন্ড গ্র্রেনেড নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় সদর থানার (উপ-পরিদর্শক) কাউসার বাদী হয়ে অজ্ঞাত ৪'শ থেকে ৫'শ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

একই সময় ওই ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের শহর কসবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স নিয়ে আসার সময় এক পক্ষ পুলিশকে বাধা দেয়। সেখানে উত্তেজনা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরবর্তীতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান ওমর ফারুক ইবনে হুছাইন ভুলুকে আটক করেন।

এ ঘটনায় ইবনে হুছাইন ভুলুকে প্রধান আসামি করে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৪'শ থেকে ৫'শ জনকে বিবাদী করে মামলা করা হয়। মামলার বাদী সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জালাল উদ্দিন। ওই মামলায় চেয়ারম্যান ওমর ফারুক ইবনে হুছাইন ভুলু এবং নাজিম উদ্দিন নামে একজনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুদ্দিন আনোয়ার মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে খুব দ্রুত। 

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image