• ঢাকা
  • বুধবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২৯ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ঈদের দিনেও মায়ানমারের বিকট শব্দ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১২:২০ পিএম
মায়ানমারের বিকট শব্দ
টেকনাফ সীমান্ত

টেকনাফ প্রতিনিধি : মিয়ানমারে চলমান গৃহযুদ্ধের কারণে ঈদের মৌসুমেও অস্বস্তিময় দিন কাটাচ্ছে কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা টেকনাফের মানুষ। রাখাইন রাজ্যে দফায় দফায় মর্টারশেল ও ভারী গোলা বিস্ফোরণের বিকট শব্দে ঈদের দিন হোয়াইক্যং, হ্নীলা, শাহপরীর দ্বীপ ও সেন্টমার্টিনসহ টেকনাফের বিভিন্ন সীমান্ত কেঁপে উঠে।

এতে করে সীমান্ত এলাকায় বসবাসকারীদের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও সর্বোচ্চ সর্তক অবস্থানে থাকার কথা জানিয়েছে কোস্টগার্ড ও বিজিবিসহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্টরা।

স্থানীয়রা বলছে, ঈদের দিন ও শুক্রবার বিকাল ৩টা পর্যন্ত সীমান্তের ওপার থেকে বিস্ফোরণের এসব বিকট শব্দ পাওয়া গেছে। আতঙ্কে সীমান্তে বসবাসকারিদের জন্য নাফ নদী দিয়ে সাগরে মাছ ধরতে যাওয়া এবং টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে যাতায়াত করা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

সেন্টমার্টিন ইউনিয়নের ইউপি সদস্য খোরশেদ আলম বলেন, “বৃহস্পতিবার ঈদের নামাজ পড়ে বাড়ি ফিরে একটু বিশ্রাম নিচ্ছিলাম, তখন মিয়ানমারের ওপার থেকে ভারী বিস্ফোরণের শব্দে এপারে ভেসে আসে। এতে সীমান্তের বাড়ী-ঘর কেঁপে উঠে। সারাদিন থেমে থেমে বিস্ফোরণের শব্দে শোনা গেলেও রাতে তা তীব্র হয়ে উঠে।”

শুক্রবার সকাল থেকে আবারও থেমে থেমে বিস্ফোরণের শব্দ ভেসে আসছে বলে জানান স্থানীয় এ ইউপি সদস্য।

টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের স্কুল শিক্ষক আবুল হোছাইন হেলালী বলেন, “মনে হচ্ছে মিয়ানমারের রাখাইনে আরাকান আর্মি এবং দেশটির সরকারি বাহিনীর মধ্যেই তীব্র সংঘর্ষ হচ্ছে। এ কারণে সীমান্তে আগের তুলনায় এখন বিস্ফোরণের শব্দ বেশি শোনা যাচ্ছে। ঈদের দিন ও মধ্যরাতসহ এখনও বিস্ফোরণের বিকট শব্দ ওপার থেকে টেকনাফ সীমান্তে ভেসে আসছে।”

সাবরাং ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ছিদ্দিক আহমদ জানান, ঈদেও বন্ধ নেই মর্টার শেল আর বিস্ফোরণের শব্দ।

টেকনাফের উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আদনান চৌধুরী বলেন, “সীমান্তে বিজিবি ও কোস্টগার্ড সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। এছাড়া রোহিঙ্গাসহ মিয়ানমারের কোনও নাগরিক যাতে অনুপ্রবেশ করতে না পারে, সেজন্য আমাদের সীমান্তরক্ষী বাহিনীগুলো সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।”

রাখাইন পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে জানিয়েছেন টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, “অনুপ্রবেশ ঠেকাতে নাফ নদী ও সীমান্তে বিজিবি সর্বোচ্চ সর্তক রয়েছেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image