• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৮ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ইটনার হাওরে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ, রক্ষা পাবে ২৭ হাজার হেক্টর জমি


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৩৯ পিএম
রক্ষা পাবে ২৭ হাজার হেক্টর জমি
ইটনার হাওরে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ

বিজয় কর রতন, মিঠামইন (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের ইটনা উপজেলার হাওরে ইতিমধ্যে ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণের কাজ শেষ করেছে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। এখন চলছে বাঁধ গুলো টুকিটাকি মেরামতের কাজ। ইটনা সদর ইউনিয়নের বিভিন্ন বাঁধে গিয়ে দেখা যায়, মাটির কাজ শেষ করে এখন বাঁধের দুই পাশে ঘাস লাগানো হচ্ছে আবার কেউ এই ঘাসের উপর পানি দিচ্ছেন। 

আগামী দুই তিন দিনের মধ্যে বাকি কাজ শেষ করার আশ্বাস দিয়েছেন বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারী প্রকৌশলী মোঃ রিয়াজুল ইসলাম। প্রতি বছর এই উপজেলার হাওর এর কৃষকরা ফসল রক্ষা বাঁধ নিয়ে চিন্তিত থাকেন। যথা সময়ে এই বাঁধ গুলোর কাজ হওয়ায় সোনালী ফসল হারানোর ভয় নেই কৃষকদের মধ্যে। কৃষক মোঃ শাহজাহান মিয়া জানান, হাওরে নিচু জমি গুলো আগাম বন্যা হলে তুলিয়ে যায়, নিচু জমির হাওর গুলোতে বাঁধ নির্মাণ হওয়ায় অনেকটা চিন্তামুক্ত কৃষকরা। 

বলধা হাওর এর বাঁধের সভাপতি সোহরাব উদ্দিন ঠাকুর জানান, কৃষকদের সারা বছরে এর একটা ফসল এই ধান, কয়েক বছর আগাম বন্যায় নিচু এলাকার জমি গুলো তলিয়ে  গেছে এতে কৃষকদের অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। চলতি বছরে বাঁধ গুলো যথা সময়ে কাজ শেষ হয়েছে আশা করি আগাম বন্যায় ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হবে না। উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্য মতে, চলতি বছরের ইটনা উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে ২৭ হাজার ৫৩০ হেক্টর জমিতে ইরি বোরো ধান রোপণ করা হয়েছে। আগাম বন্যায় ফসলের ক্ষয় ক্ষতি না হলে সোনালী ফসল ঘরে তুলতে পারবে কৃষকরা। ৪ মার্চ (সোমবার) ২০২৩-২৪ অর্থ বছরের ইটনা উপজেলার কাবিটা কমর্সুচীর আওতায় বিভিন্ন হাওরের পিআইসি এর কাজ পরিদর্শন করেন বাংলাদেশ হাওর ও জলাভূমি উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কামাল মোহাম্মদ রাশেদ। তখন বিভিন্ন পিআইস এর সভাপতি ও সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। সঠিক সময়ের মধ্যে অধিকাংশ কাজ শেষ হওয়ায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন এই কর্মকর্তা। 
 

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image