• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৮ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

উত্তরপ্রদেশের রায়বরেলী ও অমেঠী লোকসভা কেন্দ্রে কংগ্রেস বিজয়ী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ০৪ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৭:৫৩ পিএম
হাওয়া বদলাতে শুরু করে অমেঠীতে
রাহুল গান্ধী, সোনিয়া ও কিশোরীলাল শর্মা

নিউজ ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের রায়বরেলী ও অমেঠী লোকসভা কেন্দ্র এক সময় কংগ্রেসের গড় বলে পরিচিত ছিল। তবে ২০১৯ সালে অমেঠী লোকসভা নির্বাচনে পালাবদল ঘটে। রাহুল গান্ধীকে হারিয়ে ওই আসন থেকে জয় পেয়েছিলেন স্মৃতি ইরানি। পাঁচ বছর পর বদল হতে চলেছে কিশোরীলাল শর্মার হাত ধরে!

নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর, অমেঠী লোকসভা কেন্দ্রে অনেকটাই এগিয়ে কংগ্রেস প্রার্থী কিশোরীলাল। তিনি তাঁর নিকটতম বিজেপি প্রার্থী স্মৃতির থেকে এক লাখ ১৮ হাজারের বেশি ভোটে এগিয়ে।

অমেঠীর সঙ্গে গান্ধী পরিবারের সম্পর্ক অনেক পুরনো। ১৯৭৭ সালে পূর্ব উত্তরপ্রদেশের এই আসনে প্রার্থী হয়েছিলেন রাজীব গান্ধীর ভাই সঞ্জয়। দিল্লির মসনদে তখন ইন্দিরা গান্ধীর সরকার। দেশ জুড়ে বইতে শুরু করে ইন্দিরা-বিরোধী হাওয়া। সেই হাওয়ায় ধাক্কা খান সঞ্জয়। হেরে যান তিনি। তবে তিন বছর পর ১৯৮০-র লোকসভা ভোটে অমেঠীর সাংসদ হয়েছিলেন সঞ্জয়।

বিমান দুর্ঘটনায় সঞ্জয়ের অকালমৃত্যুর পরে ১৯৮১-র উপনির্বাচন হয় অমেঠীতে। সেই নির্বাচনে জয় পান রাজীব। ১৯৯১ সালের লোকসভা ভোটপর্বের মাঝে এলটিটিই-র মানববোমায় রাজীবের মৃত্যুর পরে অমেঠী থেকে কংগ্রেস রাজীব-ঘনিষ্ঠ সতীশ শর্মাকে প্রার্থী করে। জয় পান তিনি।  ১৯৯৬-এর ভোটে অমেঠী থেকে সতীশ জিতলেও ১৯৯৮ সালে হেরে গিয়েছিলেন। কিন্তু এক বছর পর আবার হাওয়া বদলাতে শুরু করে অমেঠীতে।

১৯৯৯ সালে অমেঠীতে প্রার্থী হয়ে নির্বাচনী রাজনীতিতে পদার্পণ করেছিলেন রাজীব-পত্নী সনিয়া গান্ধী। তার পর থেকে এই কেন্দ্রে টানা জয় পেয়েছে কংগ্রেস। শুধু অমেঠী নয়, উত্তরপ্রদেশের রায়বরেলী লোকসভা কেন্দ্রেও কংগ্রেস তথা গান্ধী পরিবারের প্রভাব ছিল। আর এই দুই কেন্দ্রের সঙ্গে গান্ধী পরিবারের যোগসূত্র ছিলেন কিশোরীলাল। ১৯৯৯ সালে অমেঠীতে সনিয়ার ‘ইলেকশন ম্যানেজার’ ছিলেন কিশোরীলাল। তার পর থেকে অমেঠী রাজনীতিতে ক্রমশ উজ্জ্বল হতে থাকেন তিনি।

সনিয়ার পর অমেঠী থেকে লড়েন রাহুল। ২০১৯ সাল পর্যন্ত এই কেন্দ্র থেকে কংগ্রেস জয় পেয়েছে। কিন্তু ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে রাহুলের বিরুদ্ধে এই আসনে জয় পান বিজেপির স্মৃতি। অমেঠীতে জয়ী বিজেপি প্রার্থী স্মৃতির সঙ্গে পরাজিত রাহুলের ব্যবধান ছিল ৫৫ হাজারেরও বেশি। প্রায় শেষ লগ্নে এই কেন্দ্রে প্রার্থী ঘোষণা করে কংগ্রেস। রাহুল নয়, সেই কিশোরীলালের উপরই দায়িত্ব দেয় হাত শিবির।

রাহুল তাঁর মা সনিয়ার ছেড়ে যাওয়া আসন রায়বরেলী লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী হন। রায়বরেলীতে জয়ের পথে রাহুল, একই প্রতিদ্বন্দ্বীকে মা সনিয়ার থেকে বেশি ব্যবধানে হারাতে চলেছেন রায়বেরেলি আসনে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী চার লাখ ভোটের ব্যবধানে বিজেপির প্রার্থী দীনেশ প্রতাপ সিংকে পরাজিত করছেন। নিজের অপর আসন ওয়েনাডেও এগিয়ে রয়েছেন এই কংগ্রেস নেতা।

ইন্ডিয়া টুডে জানিয়েছে, এর আগে রাহুল গান্ধীর কাছে পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন বিজেপির প্রার্থী দীনেশ প্রতাপ সিং। ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে নিজের হার স্বীকার করছেন ।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এইচ

আরো পড়ুন

banner image
banner image