• ঢাকা
  • বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২২ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

চেয়ারম্যানের উসকানিতে কারখানায় তালা, বাতিল রপ্তানি অর্ডার


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ১৩ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০২:১৯ পিএম
হস্তশিল্প
প্রতীকী ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক: নারী শ্রমিকদের উসকানি দিয়ে কারখানায় তালা ঝোলানোর অভিযোগ দিনাজপুরের রামডুবি ইউনিয়নের এক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। প্রায় একমাস কারখানায় বন্ধ থাকায় ক্ষতি হয় রপ্তানির অর্ডার পাওয়া প্রায় ৬০ হাজার ডলার সমমান মূল্যের দেশিয় পাটজাত পণ্য ও রিসাইকেলড কটন সুতার বহুমুখী পণ্য।

ঘটনাটি ঘটেছে দিনাজপুর জেলার চাকার বাজারে ২০২৩ সালের ডিসেম্বর মাসে। আবু রায়হান নামের এক স্থানীয় বাসিন্দা ঢাকা নিবাসী নারী উদ্যোক্তা প্রতিমা চক্রবর্তীর কাছ থেকে সাব কন্ট্রাক্টে কাজ করতে চান সেখানে।

সফল এই নারী উদ্যোক্তা ২০১০ সালে প্রতিষ্ঠা করেন জুট ল্যান্ড বাংলাদেশ নামক এক কোম্পানি। যার মূল কারাখানা গাজীপুরে। সমাজের পিছিয়ে পড়া নারীদের সামনের দিকে এগিয়ে আনতে তিনি দিনাজপুরকে বেছে নেন। প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় ধরে তিনি সুনামের সঙ্গে গাজীপুরের কারাখানা থেকে ব্যবসা করে আসছেন।

দিনাজপুরে বহু নারীর কর্ম সংস্থান হবে এমন আশায় তিনি সেখানে আবু রায়হান নামের একজনকে দায়িত্ব দেন পাটজাত পণ্যের হস্তশিল্প তৈরি করার কারখানা গড়ে তোলার। সেই মত তিনি প্রশিক্ষণ দেন এলাকার নারীদের। এমন এক সময় তিনি বিদেশ থেকে বহু পাটজাত পণ্যের রপ্তানি অর্ডার পান।

এদিকে আবু রায়হান নারী শ্রমিকদের তিন মাসের বেতন বকেয়া রাখেন এবং প্রতিমা চক্রবর্তীর সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। এতে নারী শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হলে তিনি সশরীরে দিনাজপুর যান। তিনি এলাকার চেয়ারম্যানের সহায়তা চান। চেয়ারম্যান তাকে সহায়তা না করে উল্টো শ্রমিকদের উসকানি দিয়ে কারখানায় তালা লাগিয়ে দেন। প্রায় ১ মাসের মতো কারাখানা বন্ধ থকে।বাতিল হয় বেশ কয়েকটি রপ্তানি অর্ডার। ক্ষতির শিকার হয় তার কোম্পানি।

এদিকে অভিযুক্ত লতিফ চেয়ারম্যানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তিনি অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি কারো কারখানায় তালা মারেননি। তিনি বলেন, এ ঘটনা ঘটার ৮ দিন পর তিনি জেনেছেন। তিনি কাউকে উসকানি দেননি। সমস্ত ঘটনা রায়হান ও কারখানার শ্রমিকরা ঘটিয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।

ক্ষতির শিকার হওয়া নারী উদ্যোক্তা প্রতিমা চক্রবর্তী পুলিশ ও জেলা প্রশাসককে জানিয়েছেন। তারা এ নিয়ে তদন্ত করছে বলে জানিয়েছে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image