• ঢাকা
  • বুধবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২৯ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

বদির বিরুদ্ধে থানায় চেয়ারম্যানের জিডি


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ০৪ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০১:১১ পিএম
বদির বিরুদ্ধে থানায় চেয়ারম্যানের জিডি
উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি : কক্সবাজারের টেকনাফে সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদির বিরুদ্ধে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ার অভিযোগে থানায় জিডি করেছে উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম। রাতেই  টেকনাফ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন নুরুল আলম। তিনি  উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি।

জানতে চাইলে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ওসমান গনী বলেন,  'বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলমের ওপর গুলি বর্ষণের ঘটনায় তিনি একটি একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ ব্যাপারে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে শুক্রবার বিকেলে টেকনাফ পৌরসভার শাপলা চত্বরে নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল আলম বলেন, 'সাবেক এমপি আব্দুর রহমান বদির স্ত্রী উখিয়া-টেকনাফের বর্তমান সংসদ সদস্য। কিন্তু বদি তাঁর গাড়িতে সংসদ সদস্য স্টিকার লাগিয়ে আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জাফর আহমদ এর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। এ গাড়ি থেকে নেমে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে দশটার দিকে টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কম্বনিয়া পাড়া এলাকায় আমাকে লক্ষ্য করে সাবেক এমপি আব্দুর রহমান বদি ও উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী জাফর আহমদ ঘটনাস্থলে পরপর দুই রাউন্ড গুলি চালায়। কৌশলগত কারণে তা আমার গায়ে লাগেনি। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি আমি।' 

বির্তকিত বদির কর্মকান্ডে ইতি মধ্য দেশব্যাপী আলোচিত উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, 'সুষ্ঠ এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে সাবেক এমপি বদি ও চেয়ারম্যান প্রার্থী জাফরের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড শুরু করেছে। 
চেয়ারম্যান প্রার্থী জাফরের পক্ষে হয়ে সাবেক এমপি সংসদ সদস্য স্টিকার লাগানো গাড়ি যোগে প্রাচরণা করে যাচ্ছে। যা তিনি ব্যবহার করতে পারেন না। কেননা তিনি এমপি নন, গাড়িতে সংসদ সদস্য স্টিকার লাগানো আইনগত অপরাধ এবং আচরণ বিধি লংঘন। আমি এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমি বিষয়টি নির্বাচন কমিশন বরাবরে লিখিতভাবে আগামি কাল অবহিত করবো। 

টেকনাফ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক  সভাপতি ফরিদুল আলম জুয়েল বলেন, সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদি ও উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী জাফর আহমদ নিজেরাই অস্ত্র হাতে গুলি ছুড়েছেন। আমাদের প্রার্থী নুরুল আলম কৌশলগত কারণে রক্ষা পেয়েছেন। আমরা ঘটনাস্থলে অত্যধিক ধৈর্য্যের পরিচয় দিয়েছি।

স্থানীয় সূত্র জানায়, তৃতীয় ধাপের তফসিলে টেকনাফ উপজেলা পরিষদের নির্বাচন হচ্ছে। উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নুরুল আলম এবারও চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। ২ মে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তিনি। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বদির পছন্দের প্রার্থী জাফর আলম। গত উপজেলা নির্বাচনেও জাফর আলমকে হারিয়ে নুরুল আলম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। স্থানীয় রাজনীতিতে নুরুল আলম বদির বিরোধী হিসেবে পরিচিত। আর জাফর আলম বদির অনুসারী।  

তবে গুলির বিষয়টি অস্বীকার করে  উখিয়া-টেকনাফের সাবেক এমপি আবদুর রহমান বদি সাংবাদিকদের বলেন, 'কোনোভাবেই গুলি ছোড়া হয়নি। কিন্তু ঘটনাস্থলে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল সেখানে হয়তো  
 দুটি পটকার আওয়াজ শোনা গেছে।'

উল্লেখ্য, নবম ও দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কক্সবাজার–৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবদুর রহমান বদি। দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় একাদশ ও দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বদির পরিবর্তে তাঁর স্ত্রী শাহীন আক্তারকে দলের মনোনয়ন দেওয়া হয়। তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাদক তালিকায় পৃষ্ঠপোষক হিসেবে বদির নাম রয়েছে। তালিকায় গডফাদার হিসেবে আছেন বদির চার ভাইসহ পরিবারের অন্তত ২৬ জনের নাম।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image