• ঢাকা
  • রবিবার, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২১ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

নিরপত্তা বেষ্টনী বিহীন ঝুঁকিপূর্ণ জামালপুর গেইটপাড়, বড় দূর্ঘটনার আশঙ্কা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২০ ফেরুয়ারী, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৩৪ পিএম
বড় দূর্ঘটনার আশঙ্কা
নিরপত্তা বেষ্টনী বিহীন ঝুঁকিপূর্ণ জামালপুর গেইটপাড়

জামালপুর প্রতিনিধি : জামালপুর শহরের থেকে বিভিন্ন স্থানে যোগাযোগের গুরুত্বপূর্ণ স্থান হচ্ছে গেইটপাড়। প্রতিদিন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত সরিষাবাড়ী ও দেওয়ানগঞ্জে এই গেইটপাড় লেবেল ক্রসিং এর উপর দিয়ে ১০ জোড়া ট্রেন চলাচল করে থাকে।

সরজমিনে দেখা যায়, এই লেবেল ক্রসিংয়ে নেই কোন ব্যারিয়ার (নিরাপত্তা বেষ্টনী)। গেইটপাড় এলাকাটি শহরের সবচেয়ে ব্যস্ততম একটি জনবহুল এলাকা। প্রতিদিন হাজার হাজার অটোরিক্সা, বাস, ট্রাক এবং প্রাইভেটকার যাতায়াত করে থাকে এই গেইটপাড় দিয়ে।

জানা যায়, জামালপুর পৌরসভার উন্নয়ন, রাস্থা সম্প্রাসারন ও ২০১৯ সালে ফ্লাই ওভারব্রীজের কাজ শুরু কারার সময় গেইটপাড়ের রেল চলাচলের লেভেল ক্রসিং এর নিরাপত্তা বেষ্টনী ব্যবস্থা ভেঙ্গে ফেলা হয়। যা এখন পর্যন্ত পুনঃসংস্কার করা হয়নি। এর ফলে যেকোন সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দূর্ঘটনা।

পথচারী ও স্থানীয় ব্যবসায়িরা জানান, গেইটপাড়ের লেভেল ক্রসিং এর নিরাপত্তা বেষ্ঠনী না থাকায় খুবই ঝুঁকি নিয়ে গাড়ী এবং পথচারীরা চলাফেরা করে। দীর্ঘদিন যাবৎ এখানে নিরাপত্তা বেষ্টনী (ব্যারিয়ার) নেই। সারাদিনই ঢাকা-ময়মনসিংহ থেকে ট্রেন সরিষারাড়ী এবং দেওয়ানগঞ্জ যাচ্ছে অথচ রাস্তাটি অরক্ষিত। অতএব যেকোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। এখানে দ্রুত একটি নিরাপত্তা বেষ্টনী (ব্যারিয়ার) করার জন্য জোরদাবী জানায় পথচারি ও স্থানীয় ব্যবসায়িরা।

জামালপুর জংশন রেলস্টেশন সূত্রে জানা যায়, জামালপুর স্টেশন থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্বপাড় এবং আরেকটি দেওয়ানগঞ্জের লাইন দিয়ে প্রতিদিন দশ জোড়া ট্রেন যাতায়াত করে থাকে। দুটি লাইনই এই গেইটপাড়ের উপর দিয়ে গেছে। শুধু মাত্র একজন গেটম্যান দিয়ে গেইটপাড়ের দুইদিকের চারটি রাস্থার নিরাপত্তা বেষ্টনীর কাজ করানো হয়, যা খুবিই ঝুঁকিপূর্ণ। এরমধ্যে আবার দীর্ঘদিন যাবৎ এখানে কোন ব্যারিয়ার নেই।

নিরাপত্তা বেষ্টনী না থাকার বিষয়ে রেলওয়ে ষ্টেশন মাষ্টার শেখ উজ্জ্বল বলেন, এবিষয়ে আমি কিছু  বলতে পরবনা, বলতে পারবেন রেলওয়ে সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী। তবে আমি লোক মুখে শুনেছি টেন্ডারের প্রক্রিয়া চলছে। এছাড়া আমি মৌখিক ভাবে বলেছিলাম বাঁশ দিয়ে হলেও যেন লেভেল ক্রসিং এর নিরাপত্তা বেষ্টনী করা হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত তা করা হয়নি।

এবিষয়ে সহকারী  নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে জানার জন্য তার অফিসে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে ফোনে তার সাথে যোগাযোগ হলে তিনি বলেন, এই ক্রসিং এর জন্য সড়ক বিভাগ আমাদেরকে একটি ডেমারেজ প্রদান করবে। ডেমারেজ পাওয়ার পর টেন্ডার হবে। যতদিন আমরা ডেমারেজ না পাচ্ছি ততদিন ব্যারিয়ারটি হচ্ছে না।

ষ্টেশন মাষ্টারের বাঁশ দিয়ে নিরাপত্তা বেষ্টনীর  প্রসঙ্গে তিনি বলেন, হ্যাঁ খুব তাড়াতাড়ি ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image