• ঢাকা
  • বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২২ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ইরানি হামলা শেষে জরুরি বৈঠকের ডাক যুক্তরাষ্ট্রের


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:১২ পিএম
ইরান
ইরানি মিসাইল হামলার ছবি

ইরান ও ইসরায়েলের মধ্যে উত্তেজনা (ইসরায়েল ইরান উত্তেজনা) বাড়ছে। শনিবার রাতে এবং রবিবার ভোরে ব্যালিস্টিক মিসাইল ও ড্রোন দিয়ে ইসরায়েলে হামলা চালায় ইরান। 

ইসরায়েলজুড়ে বিমান হামলার সতর্কতাও জারি করেছে। মূলত জেরুজালেম, দক্ষিণে নেগেভ মরুভূমি এবং মৃত সাগর, উত্তরে ইসরায়েল-অধিকৃত গোলান হাইটস এবং অধিকৃত পশ্চিম তীরে হামলা চালানো হয়।

ইসরায়েল প্রতিরক্ষা বাহিনীর (আইডিএফ) মুখপাত্র ড্যানিয়েল হাগারি একটি প্রেস ব্রিফিংয়ের সময় নিশ্চিত করেছেন, ইসরায়েল ইরান থেকে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র এবং ড্রোন দ্বারা আক্রমণ করেছে। 

ইসরায়েলের কান টিভির খবরে বলা হয়েছে, প্রায় ৪০০-৫০০টি ড্রোনের মধ্যে ১০০টি ইসরায়েলে পৌঁছানোর আগে মার্কিন, জর্ডান এবং ব্রিটিশ বাহিনী সহ মিত্র দেশগুলি দ্বারা বাধা দেওয়া হয়েছিল।

ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ইসরায়েলে ইরানের হামলার পর দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা অনেকটাই বেড়েছে। তবে ইরান বলেছে আমাদের হামলা শেষ হয়ে গেছে এবং আমরা এটা চালিয়ে যেতে চাই না, তবে ইসরাইল যদি আমাদের স্বার্থকে টার্গেট করে তাহলে আমরা কড়া জবাব দেব। 

১ এপ্রিল দামেস্কে তার কনস্যুলেটে ইসরায়েলের সন্দেহভাজন বিমান হামলার প্রতিক্রিয়ায় ইরান ইসরায়েলে কয়েকশ ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে।

আমেরিকান নিউজ পোর্টাল অ্যাক্সিওস এক ঊর্ধ্বতন ইসরায়েলি কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে বলেছে , মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব লয়েড অস্টিন তার ইসরায়েলি প্রতিপক্ষ ইয়োভ গ্যালান্টের সাথে দ্বিতীয়বারের মতো কথা বলেছেন। অস্টিন গ্যালান্টকে বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চায় ইসরাইল ইরানের বিরুদ্ধে কোনও প্রতিশোধমূলক পদক্ষেপ নেওয়ার আগে ওয়াশিংটনকে প্রথমে অবহিত করুক।

রবিবার ইসরায়েলি সামরিক মুখপাত্র বলেছেন  ইরানের দিকে ৩০০ টিরও বেশি ড্রোন এবং ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়েছে, এতে কমপক্ষে ১২ জন আহত হয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে স্পষ্টভাবে বলেছেন ইরানের বিরুদ্ধে ইসরায়েলের যে কোনো প্রতিশোধমূলক হামলার বিরোধিতা করবে ওয়াশিংটন।

  ইসরায়েল ও ইরানের মধ্যে ক্রমবর্ধমান বৈরিতার কারণে ভারত গভীরভাবে উদ্বিগ্ন, যা এই অঞ্চলে শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ। আমরা পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। 

আমাদের দূতাবাসগুলি এই অঞ্চলের ভারতীয় সম্প্রদায়ের সাথে যোগাযোগ করছে। এই অঞ্চলে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখা গুরুত্বপূর্ণ।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এসডি

আরো পড়ুন

banner image
banner image