• ঢাকা
  • রবিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২৬ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

বিরোধের জেরে ধান ক্ষেতে বিষ,সবুজ গাছ হয়েছে হলুদ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ২৩ মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১০:০৫ এএম
বিরোধের জেরে  সবুজ গাছ হয়েছে হলুদ
ধান ক্ষেতে বিষ

কালাই উপজেলা প্রতিনিধিঃ জমি নিয়ে বিরোধের জেরে জয়পুরহাটের কালাইয়ে আগাছা দমনের বিষ প্রয়োগ করে বৃদ্ধ আফতাব আলীর রোপনকৃত ইরি ধানের গাছ নষ্ট করেছে বলে অভিযোগ প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। কয়েকদিন আগে পাকা সরিষা ফসল কাটতে না পেরে এ ঘটনা ঘটিয়েছে প্রতিপক্ষরা।মঙ্গলবার দিবাগত রাতে আগাছা দমনের বিষ সবুজ ধান গাছে স্প্রে করলে মাঝে একদিন পর বৃহস্পতিবারে  গাছগুলো হলুদ আকার ধারন করে। এ ঘটনা উপজেলার আহম্মেদাবাদ ইউনিয়নের বানিহারা গ্রামে ঘটেছে।জমি দখল নিয়ে পূর্বে মারপিটের ঘটনাও ঘটেছে। উভয় পক্ষের আদালতে মামলা চলমান। 

এ অবস্থায় আফতাব আলি একই গ্রামের আবু তাহের,আতাউর রহমান,ফারুক হোসেন,কামরুল ইসলাম ও আবু বক্করের নাম উল্লেখ করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে।প্রতিপক্ষের এমন কর্মকান্ডে তিনি আতঙ্কে জীবনযাবন করছেন।  

বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) বানিহারা মাঠে গিয়ে দেখা যায়,সবুজ ধান গাছে পুরো মাঠ।এরই মধ্যে বৃদ্ধ আফতাব আলীর প্রায় ৫ বিঘা জমির ধান গাছ হলুদ বর্ণের শুকনো পাতা।মনে হচ্ছে পঁচানি রোগে মারা গেছে গাছগুলো।কিন্তু ধান গাছে স্প্রে করা হয়েছে আগাছা দমনের বিষ।আর সেই কারণেই সবুজ ধান গাছ নষ্ট হয়ে শুকিয়ে গেছে। 

জমির আইলে কথা হয় বৃদ্ধ আফতাব আলীর সাথে।তাঁর অভিযোগ,কয়েকদিন আগে প্রতিপক্ষ আবু তাহেরসহ তার লোকজন এই জমিতে পাকা সরিষা কাটতে বাঁধা দিয়েছিল।থানা পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনের সহযোগীতায় তিনি সরিষা ক্ষেত কেটে নিয়ে সেই জমিতে ইরি ধানের চারা রোপন করেছেন।ওই আক্রশে তারা আজ এই জমির ইরি ধানের গাছে আগাছা দমনের বিষ প্রয়োগ করে গাছগুলো নষ্ট করেছে।জমি যদি তাদেরই হয়,তাহলে আদালত রয়েছে,তারা জমি নিয়ে আমার বিরুদ্ধে মামলা করতে পারেন। আদালত যে রায় দিবেন তা আমি মেনে নিব। আমার ধান গাছ নষ্টের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি। আমি প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

বানিহারা গ্রামের বাসিন্দা আজমল হোসেন বলেন, আফতাব আলী দীর্ঘদিন ধরে এই জমিগুলোতে চাষাবাদ করছে। ৩/৪ মাস থেকে আবু তাহের ও তার ভাইয়েরা জমিগুলো তাদের দাবী করছে। তারাই ধান ক্ষেতে বিষ প্রয়োগ করে গাছগুলো নষ্ট করেছে। 

স্থানীয় ইউপি সদস্য সবুজ হোসেন বলেন, দলিলপত্র অনুযায়ী জমির মালিক আফতাব আলী।কেন যে তারা জমি নিজেদের দাবী করছেন তা বুঝা যাচ্ছেনা।আসলে গায়ের জোরে সবকিছু হয় না।তারা যা করছে তা আফতাব আলীর সাথে অন্যায় করছে। 

ধান গাছে বিষ প্রয়োগের অভিযোগ অস্বীকার করে আবু তাহের বলেন, আমাদের জমি আফতাব আলী জোর করে নিজ নামে খতিয়ানভুক্ত করেছে। খতিয়ান সংশোধনের মামলা করেছি। দ্বন্দ্ব আছে,দোষ দিতেই পারে। তাই বলে তো ফসল নষ্ট করতে পারিনা। 

কালাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)ওয়াসিম আল বারি বলেন,ধান গাছ নষ্টের বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি।ক্ষেত পরিদর্শনও করেছে পুলিশ।তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image