• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৯ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

তারকাটা এনে না দেওয়ায় কলেজ ছাত্রকে মারধর


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ০৪ জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২:০২ পিএম
তারকাটা এনে না দেওয়ায় কলেজ ছাত্রকে মারধর
ছাত্র সবুজ বিশ্বাস

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি : মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার চালা ইউনিয়নে তারকাটা কিনে এনে না দেওয়ায় একাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়,কলেজ পড়ুয়া সবুজ বিশ্বাস নিজের লেখা পড়ার খরচ জোগাতে সাপ্তাহে চার দিন অটোরিকশা চালায় বাকি তিন দিন কলেজে পড়তে যায়। শনিবার (২'জুলাই) বিকেলে উপজেলার কচুয়া বাজারের ডেকরেশন ব্যবসায়ী সিদ্দিক সরদার নামের এক ব্যক্তি তাকে ঝিটকা বাজারে থেকে তারকাটা আনতে দিলে মনের ভুলে তারকাটা আনতে না পারায়। এই ঠুনকো বিষয়ে ব্যবসায়ী সিদ্দিক তাকে এলোপাথাড়ি মারধর করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায়  সবুজের পিতা মো:সিদ্দিক বিশ্বাস (৪২) হরিরামপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।  

স্থানীয় সোহেল রানা জানান, সবুজ পড়ালেখার পাশা-পাশি অটো বাইক চালায়। সবুজের কাছে ডেকরেশন ব্যবসায়ী সিদ্দিক সরদার ঝিটকা বাজার থেকে লোহা (তারকাটা) কিনে আনতে দিয়েছিল কিন্তু লোহা আনতে সবুজের খেয়াল ছিল না। সবুজ ঝিটকা থেকে অটোতে যাত্রী নিয়ে কচুয়া বাজারে আসলে সিদ্দিক সরদার তার কাছে লোহা চায়। সবুজ সিদ্দিক কে বলে লোহা আনতে খেয়াল নাই। আমি এখনই আবার বাজারে যাইয়া আইনা দিতাছি। এ কথা বলার পর, সিদ্দিক সরদার সবুজ কে বাজে ভাষায় গালাগালি করে। গালাগালির জন্য সবুজ বলে, আপনি ভাষা খারাপ করতেছেন ক্যান। এক পর্যায়ে সিদ্দিক সরদার সবুজ কে মারধর করলে সবাই ফিরাইয়া দেয়। তবে সবুজ আটো-গাড়ি রাইখা বাড়ি যাইবার সময় চকের মধ্যে থিকা আবারও সিদ্দিক সরদার তাকে এলোপাথারী ভাবে মারধর করে। সবুজের চিল্লানি শব্দ পাইয়া সবাই ছুটে গিয়ে দেখে সবুজ অজ্ঞান হয়ে পড়ে রইছে এর পর ধরাধরি করে ওরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী সবুজ বিশ্বাসের বাবা মো:সিদ্দিক বিশ্বাস বলেন, আমার ছেলেকে ডেকরেশন ব্যবসায়ী সিদ্দিক সরদার শুধু শুধু মারছে। লোহা আনতে দিছিল ওর খেয়াল ছিল না এর জন্য কি মারা লাগব নাকি? ছেলের অবস্থা খুব ভালো না ডাক্তার বলতেছে সিটিস্ক্যান কইরা দেখতে হইব। আমার ছেলেরে মারছে থানায় লিখিত অভিযোগ করছি। আমি এর বিচার চাই। একবার মারার পরও ওর মন ভরে নাই আবার চকের মধ্যে থিকা মারল আমার পোলাডা যদি মইরা যাইত?

এ বিষয়ে হরিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স  উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ডা,আলংগীর জানান, রোগীর অবস্থা এখন মোটামুটি ভালো আছে। মাথায় এলোপাথারি ভাবে মারধর করা হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি ২৪ ঘন্টা না যাওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে মাথায় অনেক আঘাত পেয়েছে।

এদিকে ডেকরেশন ব্যবসায়ী সিদ্দিক সরদার (৫৫) এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি সম্পূর্ণ ঘটনার সত্যতা শিকার করে বলেন, তাকে দু একটা থাপ্পর দেওয়া হয়েছে। এর বেশি মারামারি সেখানে হয় নাই।

এ ব্যাপারে হরিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মিজানুর ইসলাম মুঠোফোনে জানান, এ বিষয়ে তদন্ত চলছে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / সাকিব আহমেদ/কেএন

অপরাধ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image