• ঢাকা
  • শনিবার, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ; ১৩ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

পাহাড়ে উন্নয়নের জোয়ার দেখতে পাচ্ছেন: কুজেন্দ্র ত্রিপুরা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৬:১৯ পিএম
উন্নয়নের সুবাতাস বইছে
পাহাড়ে উন্নয়নের সুবাতাস বইছে

নিউজ ডেস্ক:  ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেছেন, চুক্তির পূর্বে পার্বত্য চট্টগ্রামের এই পাহাড়ি অঞ্চলে কোন উন্নয়ন ছিল না। চুক্তির পরে ২৫ বছরে এসে এই পাহাড়ে উন্নয়নের জোয়ার দেখতে পাচ্ছেন। শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়নের সুবাতাস বইছে পাহাড়ে।

শুক্রবার সকালে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির রজত জয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে জাতীয় সংগীত, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর এক বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়। র‌্যালিটি জেলা পরিষদ থেকে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শাপলা চত্বর হয়ে টাউন হল প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়। পরে চেতনা মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

এই অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী এবং সঞ্চালনা করেন জেলা পরিষদের জনসংযোগ কর্মকর্তা চিংলামং চৌধুরী।  

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বলেন, শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়নের অগ্রযাত্রা আজ পাহাড়ে বিরাজমান। নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে ও যথাযোগ্য মর্যাদায় সুষ্ঠু, সুন্দর ও উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হচ্ছে এবারের শান্তি চুক্তির রজত জয়ন্তী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর আলম, জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস, জেলা পুলিশ সুপার মো. নাইমুল হক প্রমুখ।

আরও উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা টিটন খীসা, জেলা পরিষদের সদস্য কল্যাণ মিত্র বড়ুয়া, জেলা সিভিল সার্জন মো. ছাবের, জেলা পরিষদের সদস্য কল্যাণ মিত্র বড়ুয়া, সদস্য নিলোৎপল খীসা, সদস্য পার্থ ত্রিপুরা জুয়েল, জেলা পরিষদের সদস্য শুভ মঙ্গল চাকমা, জেলা পরিষদের সদস্য হিরন জয় ত্রিপুরা, জেলা পরিষদের সদস্য খোকনেশ্বর ত্রিপুরা, জেলা পরিষদের সদস্য শতরুপা চাকমা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক গোলাম মো. বাতেন, জেলা পরিষদের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. সাইফুল্লাহ, জেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. মনিরুল ইসলাম বাপ্পি, বন বিভাগের কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির, জেলা সরকারি গণগ্রন্থাগারের কর্মকর্তা ও লাইব্রেরিয়ান ওয়েন চাকমা, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদসহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তারা।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

আরো পড়ুন

banner image
banner image