• ঢাকা
  • বুধবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ; ২১ ফেরুয়ারী, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ভোলার গ্যাস সিএনজি আকারে উত্তোলন শুরু হচ্ছে


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১০:৪৪ এএম
তিতাস গ্যাসের গ্রাহক প্রান্তে সরবরাহ করবে
ভোলার গ্যাস সিএনজি আকারে উত্তোলন

নিউজ ডেস্ক:  ভোলার উদ্বৃত্ত গ্যাস সিএনজি (কমপ্রেসড ন্যাচারাল গ্যাস) আকারে সরবরাহ শুরু হচ্ছে। ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং ভোলা থেকে সিলিন্ডারে করে আনা সিএনজি তিতাস গ্যাসের গ্রাহক প্রান্তে সরবরাহ করবে।

বৃহস্পতিবার এ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে ৷ রাজধানীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠেয় এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন জ্বালানি সচিব মো. নুরুল আলম ৷

সুন্দরবন গ্যাস কোম্পানির মহাব্যবস্থাপক প্রদীপ রঞ্জন কুন্ডু জানান, প্রথম দিকে দিনে ৫ মিলিয়ন ঘনফুট সিএনজি আনা হবে।                                          

ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিংয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রিয়াদ আলী জানিয়েছেন, তাদের প্রথম গ্রাহক গ্রাফিক্স টেক্সটাইল।

চলতি বছরের ২১ মে সুন্দরবন গ্যাস ও ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিংয়ের মধ্যে চুক্তি সই হয়। চুক্তির আওতায় ভোলার উদ্বৃত্ত গ্যাস ৫ থেকে ২৫ মিলিয়ন ঘনফুট সিএনজি আকারে পরিবহন করে তিতাস গ্যাসের আওতাধীন এলাকায় সরবরাহ করবে কোম্পানিটি।

ইন্ট্রাকো ১৭ টাকা দরে প্রতি ঘনমিটার গ্যাস কিনবে। বিক্রি করবে ৪৭ দশমিক ৬০ টাকা দরে।

ভোলার ২ গ্যাসক্ষেত্রে ২ দশমিক ০৪ ট্রিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস মজুদ রয়েছে। দৈনিক উৎপাদন সক্ষমতা ২০০ মিলিয়ন ঘনফুট ৷ চাহিদা রয়েছে ৮০-৮৫ মিলিয়ন ঘনফুট।

এর ফলে শাহবাজপুর ও ভোলা গ্যাসক্ষেত্রের ৮টি কূপে প্রতিদিন প্রায় ১২০ এমএমসিএফ গ্যাস অব্যবহৃত থাকে। মূল ভূখণ্ডে গ্যাসের সংকট মেটাতে ভোলার বাড়তি গ্যাস কাজে লাগানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একইসঙ্গে পাইপ লাইন নির্মাণ ব্যয়বহুল বলে সিএনজি আকারে গ্যাস আনার সিদ্ধান্ত হয়৷

প্রসঙ্গত, দেশে দৈনিক কমবেশি ২০০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তেলন করা হয়। এর বিপরীতে চাহিদা রয়েছে ৪ হাজারের কাছাকাছি।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

আরো পড়ুন

banner image
banner image