• ঢাকা
  • রবিবার, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২১ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

বিআইডব্লিউটিসির ৬শত কর্মচারীকে স্থায়ী করার দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ০২ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১২:৫৯ এএম
বিআইডব্লিউটিসির, ৬শত কর্মচারীকে, স্থায়ী করার দাবিতে, বিক্ষোভ সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) ৬০০ অস্থায়ী কর্মচারীকে স্থায়ী করার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বিআইডব্লিউটিসি অস্থায়ী শ্রমিক কর্মচারীবৃন্দ।

সোমবার (০১ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর বাংলামটরে বিআইডব্লিউটিসির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত সমাবেশে এ দাবি জানানো হয়।

সমাবেশে সংগঠনের আহবায়ক মোঃ আল মামুন বলেন, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) এ কর্মরত সকল অস্থায়ী কর্মচারি ও শ্রমিকরা দীর্ঘদিন আন্দোলন করলেও তাদেরকে স্থায়ী করা হচ্ছে না। কিন্তু আমাদের স্থায়ীকরণের ব্যাপারে আমাদেরকে পরিস্কার করে কোন কথা না বলে নিয়োগ বাণিজ্য ও আমাদের অধিকার বঞ্চিত থেকে করছে।

তিনি বলেন, আমরা বিআইডব্লিউটিসিতে ২০ বছর হতে ৫ বছর পর্যন্ত ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর বিভিন্ন পদে অস্থায়ী ভিত্তিতে প্রায় ৬০০ শ্রমিক ও কর্মচারি কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু ২০১১ সাল হতে আমাদের স্থায়ীকরণ না করে বারবার পত্রপত্রিকাতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ছাপিয়ে স্থায়ীভাবে লোকবল নিযুক্ত করা হয়েছে। যেখানে ১৯৭২ সালে মহামান্য রাষ্ট্রপতি কর্তৃক আদেশ জারি আছে অভিজ্ঞ ও দীর্ঘ মেয়াদে চাকুরিরতদের অগ্রাধিকার দিয়ে তারপর শূন্য (যদি থাকে) তবেই বাহির থেকে লোকবল নিযুক্ত করা যাবে। সেই ভিত্তিতে ২০০৬ সালে ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণী পদে প্রায় ৪২৫জনকে বোর্ড-বাই সার্কুলেশনের মাধ্যমে স্থায়ী করা হয়। 

মোঃ আল মামুন, বর্তমানে আমাদের ভিন্ন ভিন্ন পদে বহুপদে শূন্য পদ থাকা সত্ত্বেও পত্রিকাতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে লোকবল নিযুক্তির মতো ষড়যন্ত্র করছে। এটি বার বার করে আসছে শুধুমাত্র বিআইডব্লিউটিসি'র কিছু উর্দ্ধতন কর্মকর্তা তাদের নিজ নিজ স্বার্থ হাসিল করার জন্য। বর্তমানে আমাদের বিকাশের মাধ্যমে বেতন প্রদান করা হয় যেখানে আমাদের প্রতিমাসে বেতন পেতে মাসের প্রায় ১০ তারিখ থেকে ২০ তারিখ লেগে যায়। এছাড়া ৪র্থ শ্রেণী পদে উৎসব বোনাস প্রদান করলেও যোগ্যতা, সুনাম ও দক্ষতার সহিত কাজ করলেও কর্মচারীদের একটি পারতোষিক বোনাস প্রদান করা হতো। কিন্তু সেটাও দুই বছর প্রদান করা হলেও কোন পর্ষদ সভা বা কোন রকম সভা ছাড়া অলিখিত ভাবে বাতিল ও বন্ধ করে রাখেছেন বিআইডব্লিউটিসির কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে ৪র্থ শ্রেণীতে কর্মরত কার্মচারিরা পারিতোষিক বোনাস হতে বঞ্চিত। তাছাড়া অর্থনৈতিক মন্দার কারণে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবতার জীবন যাপন করছেন। তাই এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

এ সময় স্বল্প সময়ের মধ্যে দাবি না মেনে নিলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

এসব বিষয়ে জানতে বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান ড. এ. কে. এম মতিউর রহমানের অনুপস্থিতিতে গণসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম মিশা ঢাকা নিউজ ২৪কে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিআইডব্লিউটিসির কর্মচারীদের এই সমস্যাগুলো চলমান রয়েছে। এই ছয়শত অস্থায়ী কর্মচারীকে স্থায়ী করার পদক্ষেপ হিসেবে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। খুব শীঘ্রই তাদের নিয়ম তান্ত্রিকভাবে পরীক্ষার মাধ্যমে স্থায়ীভাবে নিয়োগ প্রদান করা হবে। সম্প্রতি ৮৪ জন লিখিত পরীক্ষা দিয়েছেন। এর মধ্যে মাত্র ১২ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। এই পরীক্ষায় কোনরকম বাণিজ্য বা নিয়ম বহির্ভূতভাবে কোন কিছু করা হয়নি। 

তিনি আরো বলেন, এই কর্মচারীদের আরো কিছু সমস্যা রয়েছে। যেমন অস্থায়ী কর্মচারীদের মধ্যে চাকরি প্রার্থীর বয়স, চাকরীর বয়সসীমা, শিক্ষাগত যোগ্যতা ও নিয়োগ পরীক্ষা। এই সবগুলো ধাপে উত্তীর্ণ হলেই তারা স্থায়ী হতে পারবে। এ সময় তিনি কর্মচারীদের আন্দোলন না করে নিয়ম তান্ত্রিক ধারায় আসার আহ্বান জানান।

বিক্ষোভ সমাবেশ আরও উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের মুখপাত্র ননীগোপাল দাস, সদস্য মোঃ হুমায়ুন, মোঃ রোকন গাজী, মোঃ আল আমিন, মোহাম্মদ কুদ্দুস মিয়া প্রমুখ।

 

 

 

ঢাকানিউজ২৪.কম / জেডএস/সানি

আরো পড়ুন

banner image
banner image