• ঢাকা
  • বুধবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৫ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ক্যানবেরা ও সিডনীতে শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্‌যাপন


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২২ ফেরুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:৩৫ পিএম
প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এসময় ভাষা শহিদদে
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্‌যাপন

নিউজ ডেস্ক:  অস্ট্রেলিয়ায় বহু ভাষা-ভাষীর অংশগ্রহণে যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে পালিত হয়েছে শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। রাজধানী ক্যানবেরায় প্রভাত ফেরিসহ
বাংলাদেশ হাইকমিশনের বিভিন্ন আয়োজনে ক্যানবেরার মন্ত্রী, রাষ্ট্রদূত-কূটনীতিকসহ প্রবাসী বাংলাদেশিরা অংশগ্রহণ করেন।

এবারও ক্যানবেরার তেলোপিয়া পার্কে স্থাপিত অস্থায়ী শহিদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এর আগে আয়োজিত প্রভাত ফেরি মানুকা ওভাল ঘুরে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত শহিদ মিনার প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন এসিটি সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাসেল স্টিফেন স্মিথ, এটর্নি জেনারেল ও এসিটি গ্রিন দলের নেতা শেন রাতেনবারি, বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের প্রতিনিধি, সার্ক রাষ্ট্রসমূহের বিভিন্ন ভাষা-ভাষীদের প্রতিনিধি, অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত প্রবাসী ও অভিবাসীগণ, অস্ট্রেলিয়া সফরররত বাংলাদেশের এক প্রতিনিধি দলের সদস্যবৃন্দ এবং বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ।

অংশগ্রহণকারীরা অস্থায়ী শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এসময় ভাষা শহিদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে আলোচনা অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সুফিউর রহমান বলেন, বিশ্বের প্রায় ৭৯০ কোটি মানুষ প্রায় ৭ হাজার ভাষায় কথা বলেন যার প্রায় অর্ধেকই ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এসব মাতৃভাষা সংরক্ষণে দেশ ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সচেতনতা সৃষ্টির ওপর গুরুত্বারোপ করেন বাংলাদেশের হাইকমিশনার। সভায় অন্যান্য বক্তাগণ মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরেন।

বক্তারা সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক অর্জনে এবং ভাষার সম্মান রক্ষায় বাংলাদেশের নেতৃত্বের প্রশংসা করেন। পরে হাইকমিশন প্রাঙ্গণে হাইকমিশনার সুফিউর রহমান জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন এবং দিবসটি উপলক্ষ্যে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়। ভাষা শহিদদের উদ্দেশে মৌন প্রার্থনা এবং তাঁদের
আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দিবসের প্রথম প্রহরের অনুষ্ঠান শেষ হয়। এছাড়া সন্ধ্যায় অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী ও অভিবাসী বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণে বাংলাদেশ
হাইকমিশনে মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ওপর এক আলোচনা সভা আয়োজন করা হয়।

এতে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন হাইকমিশনারসহ অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিগণ ও অস্ট্রেলিয়া সফররত বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ। আলোচনা শেষে ভাষা শহিদদের স্মরণে ও বাংলাদেশকে উপজীব্য করে স্থানীয় বাংলাদেশি শিল্পীদের পরিবেশনায় এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।  

এছাড়া অস্ট্রেলিয়ার সিডনীতে বিনম্র শ্রদ্ধা এবং ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। দিবসটি পালনে কনস্যুলেট বিস্তারিত কর্মসূচির আয়োজন করে। দিবসের শুরুতে কনসাল জেনারেল খন্দকার মাসুদুল আলম সিডনীস্থ বাংলাদেশ হাউজে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও অর্ধনমিতকরণের মাধ্যমে দিনের কার্যক্রমের সূচনা করেন।

এরপর মহান ভাষা আন্দোলনের শহিদদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত এবং বাংলাদেশের অব্যাহত শান্তি ও উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

প্রবাস জীবন বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image