• ঢাকা
  • বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৯ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ভৈরবে মামলার স্বাক্ষীকে মারধর, হামলা-ভাংচুর


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ১৮ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:০৩ পিএম
ভৈরবে মামলার স্বাক্ষীকে মারধর
হামলা-ভাংচুর

সোহানুর রহমান সোহান, ভৈরব ( কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: ভৈরবে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে  মামলার স্বাক্ষীকে মারধোর ও তার বোনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে  ভাংচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে মোঃ আনোয়ার মিয়া ও মোশারফ রিগানের বিরুদ্ধে ।  

ভোক্তভোগী  মোঃ আমজাদ মোল্লা জানান, চন্ডিবের গ্রামের মহিউদ্দিন মিয়ার সাথে তার সৎ ভাই মান্নান মিয়ার জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছে দীর্ঘদিন ধরে ।  

জমি নিয়ে বিরোধের জেরে মান্নান মিয়াও তার সহযোগীরা জোর পূর্বক বাড়ি থেকে বের হওয়ার ( চলাচলের ) রাস্তাটি বন্ধ করে দিয়েছে । এতে মহিউদ্দিন,মোখলেছ মিয়া সহ কয়েকটি পরিবারের চলাচলে অসুবিধা হচ্ছে । 

এ ঘটনায় জমি সংক্রান্ত বিষয়ে মহিউদ্দিন মিয়া কিশোরগঞ্জ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছে ।  

মামলা দায়েরের পর বৃহস্পতিবার মান্নান গংরা আরো বেপরোয়া হয়ে আইন অমান্য করে জোর পূর্বক বসত ঘর নির্মানের কাজ করছিলো । এ ঘটনায় মহিউদ্দিন থানা পুলিশ কে জানালে পুলিশ এসে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন । এতে ক্ষিপ্ত হয়ে  মান্নান গংদের লোকজন বৃহস্পতিবার দুপুরে মহিউদ্দিনের মামলার স্বাক্ষী আমজাদ মোল্লা বাড়ি ফেরার পথে তাকে আটক কওে মারধোর কওে তার মোটরসাইকেল ভাংচুর করে । শুধু তাই নয় পরে তার বোন মুন্নির বাসায় হামলা চালিয়ে আসবাবপত্র ও জানালা ভাংচুর করে নগদ টাকা-পয়সা লুট করে নিয়ে যায়।  এ বিষয়ে আমজাদ মোল্লা জানান, মহিউদ্দিন ও তার সৎ ভাই মান্নানের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছে । কিন্ত মামলায় মহিউদ্দিন আমাকে স্বাকী করেছে সেটি আমি জানতামনা। 

কিন্ত আনোয়ার মিয়া ও মোশারফ রিগ্যান আমার উপর হামলা চালিয়ে মোটরসাইকেল ভাংচুর করে পরে তারা আমার বোন মুন্নির বাসায় হামলা চালিয়ে আসবাবপত্র ও জানালা ভাংচুর করে নগদ টাকা-পয়সা লুট করে নিয়ে যায় । এ বিষয়ে মহিউদ্দিন মিয়া অভিযোগ করে বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধে তারা চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে । আমরা দূর্ভোগে আছি । তাই বাধ্য হয়ে কিশোরগঞ্জ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছি ।  

মামলা দায়েরের পর বৃহস্পতিবার মান্নান গংরা আরো বেপরোয়া হয়ে আইন অমান্য করে জোর পূর্বক বসত ঘর নির্মানের কাজ করছিলো । এতে আমি থানা পুলিশ কে অবগত করালে পুলিশ এসে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিলে ক্ষিপ্ত হয়ে মামলার বাদী ও তার বোনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে মারধোর ও টাকা-পয়সা লুটপাট করে নিয়েছে তারা । 

এ বিষয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর মৌসুনা রহমান বেলা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন । এ ঘটনায় দীর্ঘদিন চেষ্টা করেছি সমধানের জন্য কিন্ত মান্নান মিয়া গংরা শালিসী বৈঠকে আসেনা ।

এ বিষয়ে জানতে একাধিকবার মান্নান মিয়ার মোবাইলে ফোন দিলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায় ।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image