• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৮ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

কলকাতা থেকে ফিরে যা বললেন ডিবির হারুন


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৩০ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৮:৪৯ পিএম
আনার হত্যার তদন্ত অনেকটাই এগিয়েছে
বিমানবন্দরে হারুন অর রশিদ

নিউজ ডেস্ক:  কলকাতা থেকে একটি ফ্লাইটে বৃহস্পতিবার (৩০ মে) বিকেল ৪টায় ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন তারা। এরপর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ডিবির হারুন।

 তিনি বলেন, ‘কলকাতায় আমাদের তদন্তকাজ সফল হয়েছে। সংসদ সদস্য আনার হত্যাকাণ্ড নিয়ে যেসব তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করতে গিয়েছি, তা পেয়েছি।’
 
ডিবির হারুন আরও বলেন, ‘আলামত উদ্ধার, পারিপার্শ্বিক ডিজিটাল তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করায় আনার হত্যার তদন্ত অনেকটাই এগিয়েছে। ফরেনসিক রিপোর্ট পেলেই তা নিশ্চিত হওয়া যাবে।’
 
দুদেশের গোয়েন্দাদের তথ্য সমন্বয় করে মামলার তদন্ত পরিচালনা করায় ফলপ্রসূ ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।
 
হারুন বলেন, ‘মূল পরিকল্পনাকারী আক্তারুজ্জামান শাহীন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। আরেকজন অভিযুক্ত নেপালে। ইন্টারপোলের মাধ্যমে তাদের ফিরিয়ে আনা হবে। আমরা কাঠমুন্ডুর সঙ্গে যোগাযোগ করছি। শাহীনকে ফেরাতে ইন্টারপোলের সহায়তা নিতে ভারতকে অনুরোধ করেছি।’
 
ওয়াটার থিউরি মাথায় নিয়ে সুয়ারেজ লাইন তল্লাশির পরামর্শ দেয়া হয়েছিল বলেও জানান হারুন অর রশিদ।
 
তিনি বলেন, ‘সংসদ সদস্য আনারকে হত্যার কারণ এখনই বলা সম্ভব নয়। তবে শাহীনকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারলে সবই জানা যাবে। তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে। নেপাল ও যুক্তরাষ্ট্রে আত্মগোপনে থাকা দুজনকেই গ্রেফতারের আবেদন করেছে কলকাতার পুলিশ। ভারতের সঙ্গে চুক্তি থাকায় তাদের দ্রুত গ্রেফতার করা যাবে।’
 
সঞ্জিভা গার্ডেন্সের সেপটিক ট্যাংকে খণ্ডিত দেহ পাওয়ার বিষয়ে ডিবির হারুন বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে মনে করছি উদ্ধার মরদেহের খণ্ডিত অংশ সংসদ সদস্য আনারের। তবে ফরেনসিক রিপোর্ট হাতে এলে পুরো বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে। দ্রুতই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন হবে।’
 
সংসদ সদস্য আনার খুনের রহস্য উদঘাটনে ২৬ মে ডিবির হারুনের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল কলকাতায় যায়। পাঁচদিন পর তারা দেশে ফিরলেন। তদন্ত কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন- ওয়ারি বিভাগের ডিসি মুহাম্মদ আব্দুল আহাদ ও এডিসি শাহীদুর রহমান।
 
এদিকে, কলকাতার সঞ্জিভা গার্ডেন্সের ফ্ল্যাটের সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার চার কেজির বেশি খণ্ডিত মাংসপিণ্ডের ফরেনসিক টেস্টের প্রতিবেদন শুক্রবার (৩১ মে) দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে। এরপরই ডিএনএ টেস্টের জন্য পাঠানো হবে। ডিএনএর প্রতিবেদনে জানা যাবে খণ্ডিত মাংসপিণ্ড সংসদ সদস্য আনারের কি না।
 
ডিএনএ টেস্টের জন্য শিগগির কলকাতা যাবেন আনারকন্যা ডরিন। এরইমধ্যে ভিসার জন্য আবেদন করেছেন তিনি।
 
গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে চুয়াডাঙ্গার দর্শনার গেদে সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান সংসদ সদস্য আনার। ওঠেন পশ্চিমবঙ্গে বরাহনগর থানার মণ্ডলপাড়া লেনে গোপাল বিশ্বাস নামে এক বন্ধুর বাড়িতে। পরদিন ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ আনোয়ারুল আজিম।

বাড়ি থেকে বেরোনোর পাঁচদিন পরে, গত ১৮ মে বরাহনগর থানায় আনার নিখোঁজের বিষয়ে একটি জিডি করেন বন্ধু গোপাল বিশ্বাস। এরপরও খোঁজ মেলেনি তিনবারের এই সংসদ সদস্যের। বুধবার হঠাৎ খবর ছড়ায়, কলকাতার পার্শ্ববর্তী নিউটাউন এলাকায় বহুতল সঞ্জিভা গার্ডেনস নামে একটি আবাসিক ভবনের বিইউ ৫৬ নম্বর রুমে সংসদ সদস্য আনার খুন হয়েছেন। ঘরের ভেতর পাওয়া গেছে রক্তের ছাপ। তবে ঘরে মেলেনি মরদেহ।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এইচ

আরো পড়ুন

banner image
banner image