• ঢাকা
  • বুধবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২৯ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

বাকেরগঞ্জ তুলাতলী নদীর ভাঙ্গনে বসতবাড়ি ঘর নদীগর্ভে বিলীন


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৩:৪৯ পিএম
বাকেরগঞ্জ তুলাতলী নদীর ভাঙ্গনে
বসতবাড়ি ঘর নদীগর্ভে বিলীন

বাকেরগঞ্জে প্রতিনিধি, বরিশাল : বাকেরগঞ্জের বাখরকাঠীতে  তুলাতুলী নদীর তীরে গড়ে  ওঠা এসএমবি ইট ভাটার অর্ধেক অংশসহ বসত বাড়ি ও বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠ গভীর রাতে হঠাৎ করে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। 

নদী তীরবর্তী স্হানীয়রা জানায়, কয়েক বছর ধরে  তুলাতুলী নদীর এই স্থানে  দীর্ঘদিন ড্রেজার দিয়ে বালি উত্তোলন করছিল। তখন থেকেই নদীর পাড় ভাঙ্গা শুরু হলে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অবৈধ বালি উত্তোলন বন্ধ হয়েছিল। এরপর থেকে অব্যাহত নদী ভাঙ্গন কমবেশি সবসময় ছিল। রবিবার  সন্ধার পরেও আমারা ইট ভাটার আশে পাশে কাজ করেছি কিন্তু তখন বড় ধরনের ভাঙ্গনের অবস্থা দেখা যায়নি। হঠাৎ করে গভীর রাতে ইট ভাটার প্রায় এক একর জমি ভেঙ্গে গিয়ে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়। 

ইট ভাটার মালিক শহিদুল ইসলাম জানান,প্রতিদিনের ন্যায় ইট ভাটায় কাজ চলছিলো,সারাদিন ভালো ছিলো নদী ভাঙ্গনের কোন অবস্থা দেখা যায়নি কিন্তু রাত বাড়ার সাথে সাথে হঠাৎ করে ধসে গেলো আমাদের ইট ভাটার অর্ধেক অংশ। আমাদের ইট-ভাটা টি এবছর ক্লিন এবং চুল্লীর কাজ চলমান রয়েছে, ঠিক এমন সময় এই বিপদ আমাদেরকে পথে বসিয়ে দিয়েছে। আমাদের জমিসহ ইট, ঘর-বাড়ী, মাটি সব নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। আমাদের ক্ষতির পরিমান প্রায় এক থেকে দেড় কোটি টাকার। 

ইউপি চেয়ারম্যান বশির উদ্দিন সিকদার জানান, নদী ভাঙ্গনের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে আমি সেখানে ছুটে যাই, সরেজমিনে গিয়ে দেখি ইট ভাটাটির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে,আমার ইউনিয়ন পরিষদ থেকে যতটুকু পারি তাদের সাহায্য করবো এবং উপজেলা পরিষদে ভাঙ্গন রোধের বিষয়ে কথা বলবো। 

ইট ভাটার মালিক শহিদুল ইসলাম স্ত্রী ইসরাত জাহান সুখী বলেন,আমাদের যা ক্ষতি হওয়ার তো হয়েই গেছে এখন যতটুকু ভালো আছে ততটুকু রক্ষার জন্য আমরা  বরিশাল সদর আসনের সংসদ সদস্য ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চাই।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, এই এলাকায় নদী ভাঙ্গন অনেক আগে থেকেই। কিন্তু পানি উন্নয়ন বোর্ড সহ সংশ্লিষ্টরা কখনো খোঁজ খবর নেয়নি।

বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ রাকিব হোসেন কে বারবার ফোন করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। এ বিষয়ে তাকে একটি এসএমএস প্রদান করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে বাকেরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সজল চন্দ্র শীল জানান, নদী ভাঙ্গনের বিষয়টি আমি শুনেছি, আমি সরেজমিন পরিদর্শন করে ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে জানাবো।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image