• ঢাকা
  • রবিবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৯ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ঠাকুরগাঁওয়ে বিদ্যালয়ে পছন্দের প্রার্থীকে নিয়োগ দেওয়ায় মামলা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২৮ ফেরুয়ারী, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৮:২১ পিএম
অস্থায়ী ও অন্তবর্তীকালীন নিষেধজ্ঞা প্রদান করে
আদালতের নিষেধজ্ঞা

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ  আদালতের নিষেধজ্ঞাকে অমান্য করে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে ও নামমাত্র ইন্টারভিউ দেখিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে নিয়োগ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সদর উপজেলার বুড়িহাঁট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটির বিরুদ্ধে। গত মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে (জিলা স্কুল) অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ পরিক্ষা নেওয়া হয়।

মামলার এজাহারে জানা যায়, ওই বিদ্যালয়ের দৈনিক কাজকর্ম করার নিমিত্তে অফিস সহায়ক পদে একজন এবং আয়া পদে একজন নিয়োগের জন্য ২০২১ সালের ১৭ নভেম্বর জাতীয় এবং স্থানীয় পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়। সে মোতাবেক অফিস সহায়ক পদে ১৪ জন প্রার্থী আবেদন করেন। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর থেকেই ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পৃথিরাজ মোটা আংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে গোপনে নিয়োগ দেয়ার পাঁয়তারা চালালে সোহেল রানা, নামের এক চাকরি প্রার্থী জেলার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে বাদী হয়ে মামলা করেন। বিজ্ঞ আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে গত বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) অস্থায়ী ও অন্তবর্তীকালীন নিষেধজ্ঞা প্রদান করেন। কিন্তু ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও ব্যাবস্থাপনা কমিটি আদালতের আদেশ অমান্য করে গত মঙ্গলবার গোপনে জিলা স্কুলে নাম মাত্র পরিক্ষা নিয়ে আরিফুল ইসলাম নামের এক ব্যাক্তিকে নিয়োগ দেন।  

এবিষয়ে ভুক্তভোগী সোহেল রানা জানান, আমাদের না জানিয়ে গত মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারী) ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা কেন্দ্র উল্লেখ করে অফিস সহায়ক পদে নাম মাত্র নিয়োগ পরীক্ষার জন্য প্রাথীদের আহবান করে। এতে ১০ জন প্রার্থী অংশ নেয়। কিন্তু পরে জানতে পারি স্কুল কর্তৃপক্ষ গত ১১ ফেব্রুয়ারি নিয়োগ পরীক্ষা দেখিয়ে আরিফুল ইসলামকে অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ দিয়েছেন। শুধুমাত্র অর্থের বিনিময়ে স্কুল কর্তৃপক্ষ এই ছলচাতুরীর আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানান ।

আরেক চাকুরি প্রার্থী কাজল দেননাথ বলেন, গত ১১ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে দশটায় লিখিত ও মৌখিক পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু কর্তৃপক্ষ সেদিন লিখিত ও মৌখিক পরিক্ষাটি স্থাগিত করেন। গত ২২ তারিখে পরিক্ষা নেওয়া হলেও আমাকে এব্যাপারে কিছুই জানানো হয়নি। এবিষয়ে জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ দাখিল করেছি। একই কথা বলেন আরিফ হোসেন, জুয়েল হক।

এব্যাপারে বুড়িহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পৃথিরাজ এর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা রাজী হননি।

ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পিযুষ কান্তি রায় বুড়িরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে অফিস সহায়ক পদে নিয়োগ পরীক্ষা বিষয়ে বলেন, বিভিন্ন ধাপে তাদের পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছিলো। গত ১১ ফেব্রুয়ারির নিয়োগ পরীক্ষা হয়ে কিনা আমি জানি না ? সেদিন ছিলাম না।  তবে ২২ তারিখের তারা এসেছিলো।

বাদী পক্ষের আইনজীবী মো. গোলাপ হোসেন বলেন, বিজ্ঞ আদালত বিষয়টি আমলে নিয়ে অফিস সহায়ক নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করেছেন। এই অবস্থায় স্কুল কর্তৃপক্ষ যদি কোন নিয়োগ দেয়। সেটা সম্পূর্ণ নিয়ম বর্হিরভূত এবং আদালত অবমাননার সামিল।

ঠাকুরগাঁও জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার খন্দকার মো. আলাউদ্দীন আল আজাদ বলেন, আমি এব্যাপারে কিছুই জানি না। তবে আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকলে কোন ভাবেই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় যেতে পারবে না। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

আইন ও আদালত বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image