• ঢাকা
  • বুধবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ; ২১ ফেরুয়ারী, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ভারতীয় বিজ্ঞানীরা আবিস্কার করলেন রবীন্দ্র নাথের নামে ব্যকটেরিয়া


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:১৬ এএম
বিজ্ঞান
ব্যকটেরিয়া আবিস্কারক দল

নিউজ ডেস্ক:  বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের গবেষকরা একটি ব্যাকটেরিয়া আবিষ্কার করেছেন যা উদ্ভিদের বৃদ্ধিতে সক্ষম এবং নোবেল পুরস্কার বিজয়ী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামানুসারে এর নামকরণ করা হয়েছে "প্যান্টোয়া টাগোর"।

মাইক্রোবায়োলজিস্ট বোম্বা দাম, ইউনিভার্সিটির বোটানি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এই গবেষণার নেতৃত্ব দিয়েছেন।পিটিআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন ব্যাকটেরিয়া দিয়ে কৃষি পদ্ধতিতে বিপ্লব ঘটানোর অপার সম্ভাবনা রয়েছে।

তিনি বলেন, "এটি একটি উদ্ভিদের বৃদ্ধি-উন্নয়নকারী ব্যাকটেরিয়া যা কৃষিক্ষেত্রে একটি বিপ্লব হিসাবে প্রমাণিত হবে।" এটি ধান, মটর এবং মরিচ চাষের প্রচারের অপার সম্ভাবনা দেখিয়েছে।” দামকে তার গবেষণার কাজে সহায়তা করেছেন রাজু বিশ্বাস, অভিজিৎ মিশ্র, অভিনব চক্রবর্তী, পূজা মুখোপাধ্যায় এবং সন্দীপ ঘোষ।  দাম বলেন, তার দল শান্তিনিকেতনের সোনাঝুরির মাটি থেকে ব্যাকটেরিয়া বিচ্ছিন্ন করেছে।

"এর পরে তারা ঝাড়খণ্ডের ঝরিয়ার কয়লা খনির বেল্টে ব্যাকটেরিয়া আবিষ্কার করেছে,"। তিনি আরো বলেন, 'পানতোয়া ট্যাগোরি' দক্ষতার সাথে মাটি থেকে পটাসিয়াম আহরণ করে যা উদ্ভিদের বৃদ্ধি বাড়ায়।"ঝারিয়া কয়লা খনির মাটিতে পাওয়া ব্যাকটেরিয়া পটাসিয়াম এবং ফসফরাসকে দ্রবণ করে এবং নাইট্রোজেনের মাত্রা ঠিক করে যা উদ্ভিদের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে," তিনি বলেন।"

আমাদের বিশ্লেষণে দেখা গেছে এটি একটি নতুন প্রজাতির ব্যাকটেরিয়া যা প্রকৃতিতে অনন্য,"। তিনি বলেন, ব্যাকটেরিয়া বাণিজ্যিক সারের ব্যবহার কমিয়ে দেবে এবং শেষ পর্যন্ত চাষের খরচ কমাতে এবং ফসলের ফলন বাড়াতে সাহায্য করবে।

তাদের এই গবেষণা অ্যাসোসিয়েশন অফ মাইক্রোবায়োলজিস্ট অফ ইন্ডিয়া (এএমআই) আনুষ্ঠানিকভাবে আবিষ্কারটিকে স্বীকৃতি দিয়েছে।তাদের অনুসন্ধানগুলি 'ইন্ডিয়ান জার্নাল অফ মাইক্রোবায়োলজি'-তেও প্রকাশিত হয়েছে।

ঠাকুরের নামে নামকরণের কারণ জানতে চাইলে দাম কৃষি বিষয়ে ঠাকুরের দূরদর্শী প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করেন।তিনি বলেন, “গুরুদেব রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং তাঁর পুত্র রতীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কৃষি প্রচেষ্টাকে সম্মান জানানোর এটাই সেরা উপায়। ঠাকুর তার ছেলেকে আমেরিকার ইলিনয়েতে কৃষি বিজ্ঞান পড়তে পাঠান।

ঢাকানিউজ২৪.কম / এসডি

আরো পড়ুন

banner image
banner image