• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৮ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

ময়মনসিংহে উপকারভোগী মহিলাদের মাসিক ৩০ কেজি হারে চাল বিতরণ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বুধবার, ১৪ ফেরুয়ারী, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ০৮:৩১ পিএম
ময়মনসিংহে উপকারভোগী মহিলাদের মাসিক ৩০ কেজি হারে
চাল বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ : জাতীয় উন্নয়নের মূল শ্রোতধারায় নারীকে সম্পৃক্তকরণ ও নারীর সার্বিক ক্ষমতায়ণ নিশ্চিত করার সুষম উন্নয়ন একটি অপরিহার্য পূর্বশর্ত। বর্তমান সরকারের গৃহীত ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট (ভিডব্লিউবি) কর্মসূচি, মা ও শিশু সহায়তা কর্মসূচি, মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র,  মহিলাদের আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ক্ষুদ্র ঋণ কর্মসূচি, নারী নির্যাতন, বাল্যবিবাহ ও যৌতুক প্রতিরোধ কার্যক্রম, শ্রমজীবী মেয়েদের শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র কার্যক্রম, কিশোর-কিশোরী ক্লাব স্থাপন প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে। একসিলারেটিং প্রটেকশন ফর চিল্ড্রেন (এপিসি) প্রকল্প সমূহের মত গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়নমূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, ময়মনসিংহ।

বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, ময়মনসিংহ জেলা থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ১৩টি উপজেলায় ভালনারেবল উইমেন বেনিফিট (ভিডব্লিউবি) কর্মসূচির আওতায় ২০২৩-২০২৪ (২ বছর) এ জেলার ৩৫ হাজার ৭৪ জন উপকারভোগী মহিলা জনপ্রতি মাসিক ৩০ কেজি হারে চাল বিতরণ করা হচ্ছে। কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল কর্মসূচির আওতায় ময়মনসিংহ জেলার সকল পৌরসভায় ২ হাজার ১৫০ জন উপকারভোগী মহিলাকে জনপ্রতি মাসিক ৮০০ টাকা করে বিতরণ করা হচ্ছে। মহিলাদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ক্ষুদ্রঋণ কর্মসূচির আওতায়  ২০০৩ সাল হতে  প্রদত্ত ঋণ ৪ কোটি ১৪ লক্ষ ২৮ হাজার ৯৫৯ টাকা এবং ঋণ গ্রহীতার সংখ্যা  ৫ হাজার ৪০০ জন। মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র কর্মসূচির আওতায় জীবীকায়নের জন্য মহিলাদের দক্ষতা ভিত্তিক প্রশিক্ষণ  আধুনিক দর্জি বিজ্ঞান, শো-পিচ তৈরি, খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ, মোমবাতি তৈরি, বিউটি ফিকেশন প্রশিক্ষণ  তিন মাসব্যপি কর্মসূচি চলমান।

মহিলা অধিদপ্তরের সূত্রে জানা যায় মা ও শিশুর সহায়তা কর্মসূচির আওতায় ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রতি মাসে ১৬৫ জন করে এবং সদর উপজেলার প্রতি ইউনিয়নে প্রতি মাসে ১৫ জন এবং অন্যান্য উপজেলার প্রতি ইউনিয়নে প্রতি মাসে ৬ জন করে উপকারভোগী বাছাই অব্যহত রয়েছে। শ্রমজীবী মায়েদের শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র কর্মসূচির আওতায় শ্রমজীবী মায়েদের ০৬ মাস হতে ০৬ বছর বয়সি ৮০টি শিশুকে সকাল ৯টা হতে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত থাকা, খাওয়া, প্রাক- প্রাথমিক শিক্ষা, ইনডোর খেলাধুলা সহ নিরাপদ হেফাজতে রাখা হয়।

জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ সেলের মাধ্যমে নারী ও শিশু নির্যাতন সংক্রান্ত অভিযোগ গ্রহণ ও আইনি সহায়তা প্রদান করা হয়। বাল্যবিবাহ, যৌতুক, ইভটিজিং, যৌন হয়রানি ও পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধ ও সুরক্ষা আইন ২০১০ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক সভা সমাবেশ, উঠান বৈঠক কার্যক্রম চলমান।

 আন্তর্জাতিক নারী দিবস, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম দিবস ও জাতীয় শিশু দিবস, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়। এছাড়া বেগম রোকেয়া দিবস, কন্যা দিবস, মা দিবস ২০১৩ সাল থেকে শুরু হওয়া ‘জয়িতা অন্বেষণ বাংলাদেশ’ শীর্ষক কার্যক্রমের আওতায় পাঁচটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কৃত করা হয়। এ পর্যন্ত বিভাগীয় পর্যায়ে ১৫ জন, জেলা পর্যায়ে ৪০ জন ও উপজেলা পর্যায়ে ৫২০ জন জয়িতা নির্বাচন করা হয়। “রোকেয়া দিবস”২০২৩ উদযাপন অনুষ্ঠানে জয়িতাদের সম্মাননা ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image