• ঢাকা
  • বুধবার, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ; ২১ ফেরুয়ারী, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

লক্ষ্মীপুর জেলায় পতাকা অবমাননা নিয়ে সংঘর্ষ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৫৭ পিএম
লক্ষ্মীপুর জেলায়
পতাকা অবমাননা নিয়ে সংঘর্ষ

নাজমুল হোসেন, নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুর জেলায় মহান বিজয় দিবসের পতাকা অবমাননার প্রতিবাদ করার কারণে মোহাম্মদীয়া হোটেলে শ্রমিকদের হামলায় লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার উত্তর হামছাদী ইউনিয়ন পরিষদের তহসিলদার ওমর ফারুক ও লক্ষ্মীপুরের রায়পুরের চর বংশী ইউনিয়ন পরিষদের তহসিলদার আরিফুর রহমান আহত হোন। পরবর্তীতে আহত দুই তহসিলদার কে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

গতকাল শনিবার (১৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টার দিকে লক্ষ্মীপুর শহরের উত্তর তেমুহনী এলাকায় মোহাম্মদীয়া হোটেলে এ ঘটনা ঘটে। বিক্ষুব্ধ হয়ে জনতা মোহাম্মদীয়া হোটেল বন্ধ করার বিক্ষোভ করতে থাকে। পরে পুলিশ এসে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং ৮ হোটেল কর্মচারীকে আটক করেন।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার উত্তর হামছাদী ইউনিয়ন পরিষদের তহসিলদার আহত ওমর ফারুক হোসেন প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা সুজায়েতর উল্যাহর পুত্র এবং লক্ষ্মীপুরের রায়পুরের চর বংশী ইউনিয়ন পরিষদের তহসিলদার আহত আরিফুর রহমান প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা আলী আহম্মেদর পুত্র।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায় যে, মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। শহরের উত্তর তেমুহনী এলাকায় মোহাম্মদীয়া হোটেল কর্তৃপক্ষ বিকৃতভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। এসময় মোহাম্মদীয়া হোটেলে খাবার খেতে এসে পতাকার অবমানার প্রতিবাদ করেন তহসিলদার ওমর ফারুক হোসেন ও আরিফুর রহমান। এতে মোহাম্মদীয়া হোটেলের ম্যানেজার রাকিবের সাথে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে চড় দেন। এতে হোটেলের শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে ফারুক হোসেন ও আরিফুর রহমানের উপর হামলা চালায়।

এ নিয়ে দুই-পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পরে স্থানীয়রা তাদের ২জনকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এদিকে জাতীয় পতাকার অবমাননার ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে স্থানীয়রা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। এ ঘটনায় পুলিশ ওই হোটেলের ৮ কর্মচারীকে আটক করে থানায় নিয়ে যান। 

সদর হাসপাতালের চিকিৎসক আনোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, ২জনের মাথা ও হাতে কাচের বোতল ও গ্যাস সিলিন্ডার দিয়ে আঘাত করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোহাম্মদীয়া হোটেল কর্তপক্ষ মুখ খোলেনি।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার উপ-পরিদর্শক ওলি উল্যাহ আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করন,  হোটেল শ্রমিকরা যে হামলা করেছে, এটি অন্যায় করেছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাম আরিফুর রহমান বিষয়টি জানান, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক ও লজ্জা জনক। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এটি ফৌজদারি অপরাধ। ৮ জনকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় নিয়মিত মামলা নিতে সদর থানাকে বলা হয়েছে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image