• ঢাকা
  • বুধবার, ২০ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ময়মনসিংহ নগরীর রেললাইন স্থানান্তরসহ নানান সমস্যা নিয়ে স্মারকলিপি


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৮:৪১ পিএম
বাংলাদেশের সর্বশেষ ৮ম বিভাগ ময়মনসিংহ।
ময়মনসিংহ নগরীর নানান সমস্যা নিয়ে স্মারকলিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ:   ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন নাগরিক সমস্যা নিয়ে স্মারকলিপি প্রদান করে ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলন ও উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদ। 
বৃহস্পতিবার  ৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে  ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন হলরুমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলন ও উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি এডভোকেট এ.এইচ. এমখালেকুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রকৌশলী নুরুল আমিন কালাসহ ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন এর বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারী বৃন্দ এবং নাগরিক আন্দোলন ও উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

বক্তারা বলেন ময়মনসিংহ পৌরসভা থেকে সিটি কর্পোরেশন রূপান্তরের দাবি নাগরিক আন্দোলন দীর্ঘদিন যাবৎ লড়াই-সংগ্রাম করে তা আদায় করেছে। নাগরিক আন্দোলনের অর্জন বাংলাদেশের সর্বশেষ ৮ম বিভাগ ময়মনসিংহ। বিভাগীয় এই শহরে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনকে নাগরিকদের বসবাসের যোগ্য নগরী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য জেলা নাগরিক আন্দোলনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন  দাবীসমূহ তুলে ধরেন। 

ঐতিহ্যবাহী বৃহত্তর ময়মনসিংহ ৪টি জেলার সমন্বয়ে (ময়মনসিংহ, শেরপুর, জামালপুর ও নেত্রকোণা) ময়মনসিংহ বিভাগ গঠিত হয়েছে। মযমনসিংহ শহর ময়মনসিংহ বিভাগের হেডকোয়ার্টার হওয়ায় ময়মনসিংহ শহরের গুরুত্ব বহুলাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। ময়মনসিংহ শহরটিকে শিক্ষা ও সংস্কৃতির নগরী বলা হয়। ময়মনসিংহ শহরের যানজট একটি প্রধান সমস্যা। গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা ও ফুটপাত অবৈধ দখলে আছে। এছাড়া রাস্তার দু'পার্শ্বে দোকানপাট বসার কারণে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হয়। তাই  রাস্তা ও ফুটপাতে অবৈধ দোকানপাটের উচ্ছেদ করতে হবে। 

ময়মনসিংহ বিভাগীয় শহরের যানজটের প্রধান কারণ শহরের মাঝখান দিয়ে রেললাইন চলে গেছে। এই রেললাইনে ২৬টি পয়েন্টে রেলক্রসিং রয়েছে। প্রতিদিন বেশ কয়েকটি ট্রেন চলাচল করে। রেলক্রসিং পয়েন্টের দু'পার্শ্বে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। তাই  ময়মনসিংহ বিভাগীয় শহরের যানজট নিরসনে রেললাইনটি স্থানান্তর অতীব জরুরী। 
সুতিয়াখালী রেলস্টেশন হতে খাগডহর পর্যন্ত সহজেই রেললাইন স্থানান্তর করা যায়। ময়মনসিংহ শহরের কেন্দ্র হতে রেললাইন স্থানান্তরের ব্যবস্থা গ্রহণ বা ফ্লাইওভার নির্মাণের মাধ্যমে সমস্যার সমাধানে প্রয়োজনীয় উদ্দ্যোগ গ্রহণ করবেন।

 ময়মনসিংহ বিভাগে সমন্বিত ও সার্বিক উন্নয়নের জন্য 'ময়মনসিংহ বিভাগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ' প্রতিষ্ঠার জোর দাবি জানাচ্ছি।

সিটি কর্পোরেশনের সকল নির্মাণ কাজ টেকনিক্যাল সুপারভাইজার দ্বারা পর্যবেক্ষণ ও মানসম্পন্ন কিনা তা নিশ্চিত করতে হবে। 

নগরীর পরিবেশ রক্ষায় উন্নয়ন কাজে ভবন নির্মাণে যত্রতত্র ইট, বালু, রড, সিমেন্ট, কাঠসহ নির্মাণ সামগ্রী রাস্তায় ফেলে রাখা বন্ধ করতে হবে।  টেম্পু স্ট্যান্ড, বাস স্ট্যান্ড, অটো স্ট্যান্ড এবং আন্তঃজেলা বাসস্ট্যান্ড অবিলম্বে শহরের বাহিরে স্থানান্তর করতে হবে।

ময়মনসিংহ শহরটি ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে অবস্থিত। নদের দুই তীরে দখলের কারণে নদটি সংকুচিত হয়ে এখন মৃতপ্রায়। আমাদের দীর্ঘদিনের দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে দের দক্ষ সরকারের বদান্যতায় ব্রহ্মপুত্র নদের নাব্যতা ফিরিয়ে আনার প্রয়োজনে ড্রেজিংয়ের কাজ শুরু হয়েছে। কিন্তু নদের দুইপাড়ে অবৈধ স্থাপনা বা অবৈধ দখলদারীদের উচ্ছেদ কার্যক্রম দৃশ্যমান নয়। অবৈধ দখলদার উচ্ছেদে আমরা আপনার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

খাদ্য, ফল, মাছ, মাংস ও তরিতরকারিতে ভেজাল, জনস্বাস্থ্যকে দুর্বিসহ করে তুলেছে। এ বিষয়ে আমরা আপনার পদক্ষেপ কামনা করছি।

সিএনজি, মাহিন্দ্র, অটো রিক্সা শহরের বিভিন্ন জায়গায় স্ট্যান্ড গড়ে তুলেছে। সেইসব স্ট্যান্ড বন্ধ করতে হবে । এবং শম্ভুগঞ্জ ব্রীজ মোড়সহ শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে চাঁদাবাজী হচ্ছে। তা বন্ধ করতে হবে।
 শহরে ধারন ক্ষমতার অতিরিক্ত যানবাহন চলাচলে কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতে হবে। এ ছাড়া লাইসেন্স ও ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলাচল বন্ধ করতে হবে।

 শহরে দিনের বেলায় বাহিরের ট্রাক, বালুর ট্রাক ও অন্যান্য ভারী যানবাহন প্রবেশ বন্ধ করতে হবে। অপরিকল্পিত ড্রেনেজ সিস্টেমের কারণে সামান্য বৃষ্টি হলেই শহরের জলাবদ্ধতা থেকে নগরবাসীকে মুক্ত করতে হবে।

ময়মনসিংহ শহরের শিল্প-সংস্কৃতি সংগঠনসমূহের কার্যক্রম ত্বরান্বিত করতে তাদের দীর্ঘদিনের দাবি 'সাংস্কৃতিক পল্লী' নির্মাণে যথাযথ ভূমিকা পালনের জন্য আপনার কাছে আমাদের প্রাণের প্রত্যাশা।

সারাদেশের বিবেচনায় ময়মনসিংহ নারী উদ্যোক্তাদের প্রধান ঘাঁটি। অসংখ্য নারী উদ্যোক্তা এই শহরে তাদের মেধা ও যোগ্যতা নিয়ে এগিয়ে চলেছে। সেইসব নারী উদ্যোক্তাদের জন্য শহরে একটি 'ব্যবসায়ী জোন গড়ে তোলার জন্য আপনার কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি। 

শহরকে সুশৃঙ্খল করতে এবং শহরের যানজট নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য যে পরিমাণ ট্রাফিক পুলিশ প্রয়োজন তা না পাওয়ায় শহরে প্রতিদিন যানজট বেড়েই চলেছে। যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশের সংখ্যা বাড়াতে হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image