• ঢাকা
  • রবিবার, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

১০০ মহাসড়ক দেশের মানুষের জন্য উপহার: প্রধানমন্ত্রী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বুধবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০১:০৪ পিএম
১০০ মহাসড়ক দেশের মানুষের জন্য উপহার
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

নিউজ ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের ৫০ জেলায় তৈরি করা ১০০ মহাসড়ক বিজয়ের মাস ডিসেম্বরে দেশের মানুষের জন্য উপহার। তিনি বলেন, এটা আমাদের বিজয়ের মাস। এ মাসে উদ্বোধন করা এ ১০০ মহাসড়ক আমি দেশের মানুষের জন্য উপহার হিসেবে দিলাম।

বুধবার (২১ ডিসেম্বর) দেশের ৫০টি জেলায় তৈরি করা ১০০ মহাসড়ক উদ্বোধন করার প্রাক্বালে দেয়া বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সকাল ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে অংশ নেন তিনি।  

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১০০ মহাসড়ক নির্মাণের মাধ্যমে দেশে নিরাপদে সড়ক ব্যবহারের নতুন সুযোগ তৈরি হলো। পাশাপাশি এর মাধ্যমে এসব অঞ্চলের অর্থনৈতিক গতিশীলতাও বাড়বে। যোগাযোগ ব্যবস্থাকে সবসময় গুরুত্ব দিয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার।
 
আগে পায়ের স্যান্ডেল হাতে নিয়ে হাঁটতো দেশের মানুষ, এখন আর দেশের রাস্তাঘাট সেই অবস্থায় নেই বলেন প্রধানমন্ত্রী। 

তিনি আরও বলেন, উন্নয়ন আমরা করে যাচ্ছি, আমরা করে যাব। উন্নয়ন করাকে আমরা আমাদের দায়িত্ব বলে মনে করি। জনগণের কল্যাণ করা আমাদের দায়িত্ব। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সেই কাজটিই করে যাচ্ছে। আর তার শুভফল দেশের মানুষ পাচ্ছে।

তবে যতটুকু করে দিচ্ছি সেটা রক্ষার দায়িত্ব; যথাযথভাবে ব্যবহার করার দায়িত্ব; পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব আপনাদের। আপনারা এর রক্ষণাবেক্ষণ করবেন এটাই আমি আশা করি যোগ করেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের এটা শুনতে হয় যে আওয়ামী লীগ সরকার দেশটা ধ্বংস করে দিয়েছে। কিন্তু এর আগে আমরা ১০০টি সেতু একসাথে উদ্বোধন করেছি, এবার আমরা ১০০টি সড়ক নির্মাণ বা উন্নয়নের কাজ সম্পন্ন করলাম। এরপরও যারা বলে আওয়ামী লীগ সরকারে এসে দেশ ধ্বংস করে দিয়েছে, দেশের মানুষ এটা বিশ্বাস করবে কিনা সেটাই আমার প্রশ্ন।

সরকার প্রধান বলেন, এ সুবিধা যেসব আপনার পেয়েছেন ১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত এবং ২০০৯ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত যখন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায়। স্বাধীনতার পর ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ, সে সময় যত সড়ক-সেতু নির্মাণ করা হয়। এর বাইরে যারা ক্ষমতায় ছিল তারা দেশের জন্য কী করেছে, আর কতটুকু উন্নতি করেছে, আর আওয়ামী লীগ সরকার কী করেছে, আমি আশা করি দেশবাসী তা একটু চিন্তা করে দেখবেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া কত দেশকে দৃষ্টান্ত হিসেবে দেখি। প্রকৃতপক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যদি বেঁচে থাকতেন, তার হাতে যদি রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব থাকতো, তাহলে ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ হতো বিশ্বের কাছে দৃষ্টান্ত। কিন্তু ঘাতকদের কারণে সেটা হতে পারেনি।

শেখ হাসিনা বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে বাংলাদেশ যখন যাত্রা শুরু করে, ঠিক সেই সময়েই ’৭৫-এর ১৫ আগস্টের আঘাতটা আসে। থেমে যায় উন্নয়নের অগ্রযাত্রা। জাতির পিতা বেঁচে থাকলে ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে বিশ্বের কাছে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারতো।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সঙ্গে সরাসরি সংযুক্ত ছিল টাঙ্গাইল ও খুলনা জেলা। বাকি জেলাগুলো প্রোজেক্টরের মাধ্যমে যুক্ত হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মুখ্যসচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়ার সঞ্চালনায় এতে সরকারের পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

জাতীয় বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image