• ঢাকা
  • সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৮ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

মৌলভীবাজারে ট্রাফিক চেকিং চলাকালে দূর্ঘটনায় নিহত-১, দুই ট্রাফিক পুলিশ ক্লোজ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ০৮ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১১:৩২ এএম
মৌলভীবাজারে ট্রাফিক চেকিং চলাকালে দূর্ঘটনায় নিহত-১
ওই স্থানের দায়িত্বে ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবল অসিত দাস ও তাওহীদকে ক্লোজ

মোঃ জহিরুল ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টার: মৌলভীবাজার শহরের জুগিডর এলাকায় ট্রাফিক পুলিশের চেকিং চলাকালে বাস চাপায় রফিকুল আমিন বোরহান নামের এক মটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। অপর আরোহী শাহেদ আলী গুরুতর আহত হয়ে চিকিৎসাধীন ।

এ ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী মৌলভীবাজার-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়ক সুষ্ট বিচারের দাবিতে প্রায় দুই ঘন্টা অবরোধ করে রাখ।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান  সোমবার ৭ নভেম্বর বিকেলে মৌলভীবাজার জুগিডর এলাকায় চেকিং চলাকালে ট্রাফিক পুলিশ সিগন্যাল দিলে মটর সাইকেল আরোহী সিগন্যাল অমান্য করে গতি না কমিয়ে চলে যায় । ট্রাফিক পুলিশ সদস্য অসিত দাশ পিছন থেকে তাড়া করলে  এ সময় পেছন দিক থেকে একটি বাস ধাক্কা দিলে মটর সাইকেলে থাকা ২ জন আহত হন। 

আহতদের উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে গুরুত্বর আহত বোরহানকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এমএজি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ্যাম্বুলেন্সে করে নেয়ার পথে দূর্ঘটনা স্থলের কাছেই মটরসাইকেল আরোহী বোরহানের মৃত্যু হয়। পরে এ্যাম্বুলেন্সের থাকা লাশসহ এলাকাবাসী সড়ক অবরোধ করে রাখে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা ক্ষোভের সাথে জানান ওই এলাকায় ট্রাফিক পুলিশের ধাওয়া খেয়ে হতবম্ভ হয়ে দূর্ঘটনাটি ঘটে। তারা দায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থার দাবি জানান। নিহত বোরহান মৌলভীবাজার সদর উপজেলার কুছারমহল এলাকার আব্দুস শহীদ মিয়ার ছেলে। গুরুতর আহত শাহেদ আলী (৪০) সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

পুলিশ জানায় ঘটনার পর বাস রেখে চালক পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে জেলা পুলিশের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন এবং দূর্ঘটনার প্রকৃত কারণ তদন্তকরে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস  দিলে অবরোধ তোলে নেয় স্থানীরা।

মৌলভীবাজারের অতিরিক্তি পুলিশ (এডমিন এন্ড ফাইন্যান্স) হাসান মোহাম্মদ নাছের রিকাবদার রাতে বলেন, এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক ৩ সদস্যের একটি  তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই স্থানের দায়িত্বে ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবল অসিত দাস ও তাওহীদকে ক্লোজ করা হয়েছে।

এদিকে একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছে অসিত দাশ ব্যবহার খুব খারাপ সে জোড় করে চালক ও মটর সাইকেল আরোহীদের কাছ থেকে টাকা আদায় করে। পুলিশের যে গুনাবলি থাকার কথা সেটি তার মাঝে নেই। বোরহান সিগন্যাল না মানাতে ট্রাফিক পুলিশ সদস্য অসিত দাশ মটর সাইকেল আরোহীকে দাওয়া করলে অন্য গাড়ির সাথে ধাক্কা খেয়ে আহত হলে মেডিক্যালে যাওয়ার আগে মারা যায়।  

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

সারাদেশ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image