• ঢাকা
  • শনিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৩ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

 রুশ সেনারা এক সপ্তাহের মধ্যে খেরসন ছাড়বে


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ১১ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২:৪২ পিএম
এক সপ্তাহের মধ্যে খেরসন ছাড়বে  
রুশ সেনারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রুশ সেনাদের পুরোপুরি খেরসন ছেড়ে যেতে এক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী অলেক্সি রেজনিকভ। ইউক্রেনীয় সেনারা খেরসনের উত্তরাঞ্চলের অনেকখানি এলাকা পুনর্দখলের দাবি করেছে। তবে খেরসনে রুশ সেনারা বিপুলসংখ্যক মাইন স্থাপন করে গেছে দাবি করে প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বলেছেন, এগুলো সরাতে কয়েক বছর লেগে যেতে পারে। খ

খেরসন শহর থেকে রাশিয়ার সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণার পর বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলে বড় অগ্রগতির খবর পাওয়া গেছে। খেরসন অঞ্চলের রাজধানী খেরসন শহর। সেখান থেকে ৫৫ কিলোমিটার উত্তরে স্নিহুরিভকা গ্রামের দখল নেন ইউক্রেনের সেনারা। ইউক্রেনের সেনাপ্রধান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, দখলের এ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

তবে খেরসন শহর থেকে রুশ সেনাদের পুরোপুরি সরে যেতে এক সপ্তাহ সময় লেগে যেতে পারে বলে ধারণা করছেন ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী। যুদ্ধে ইউক্রেনে বিভিন্ন অঞ্চলের রাজধানীগুলোর মধ্যে শুধু খেরসন শহরই রাশিয়ার দখলে ছিল।

গত সেপ্টেম্বরে ইউক্রেনে নিজেদের দখলে থাকা চার অঞ্চলকে রাশিয়ার সঙ্গে অঙ্গীভূত করার ঘোষণা দেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এর মধ্যে একটি ছিল খেরসন। সেখান থেকে রাশিয়ার সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণায় নিশ্চিন্ত মনে আনন্দ উদ্‌যাপন করতে পারছে না ইউক্রেন। শহরের সব জায়গায় রুশ সেনারা মাইন পুঁতে রেখেছে বলে আশঙ্কা দেশটির কর্মকর্তাদের। প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিও একই রকম কথা বলেছেন।

জেলেনস্কি বলেন, ‘মুক্ত হওয়া অঞ্চলগুলোয় যাদের পক্ষে গিয়ে সেনাদের সাহায্য করা সম্ভব তারা তা করুন। প্রথম এবং মূল কাজ হলো মাইনমুক্ত করতে হবে ওই অঞ্চলগুলো। আমি শুনেছি, মাইনগুলো সরাতে এক যুগ লেগে যেতে পারে। তবে আমাদের হাতে এত সময় নেই। আমাদের কয়েক বছরের মধ্যে এগুলো সরাতে হবে।’

তিনি আরও জানান, বৃহস্পতিবার দেশটি যুক্তরাষ্ট্রের আরও সামরিক সহায়তা পেয়েছে। এর মধ্যে আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাও রয়েছে।

জেলেনস্কির উপদেষ্টা মিখাইল পোডোলিয়াক বলেন, রাশিয়ানদের কথায় ও কাজে মিল নেই। ফলে রুশ কমান্ডার সুরোভিকিন খেরসন ছাড়ার কথা বললেও এখনই তারা এটি বিশ্বাস করবেন না। রুশ সেনারা সত্যিই খেরসন ছাড়ছে কি না, সেটি আগে দেখবেন। এছাড়া এখনই খেরসন শহরে ইউক্রেন তাদের সেনাদের পাঠাবে না বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।

এর আগে বুধবার (৯ নভেম্বর) টেলিভিশনে দেয়া এক বক্তব্যে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগুও ডিনিপ্রো নদীর ওপার থেকে সৈন্য প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন। খেরসনে রাশিয়ার নিযুক্ত ডেপুটি গভর্নর এক গাড়ি দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার পর এ ঘোষণা দেয়া হয়।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image