• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ২৫ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

বিরামপুরে ক্লিনিকের সামনে থেকে ভ্যান চুরি, থানায় অভিযোগ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ২৬ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১১:৫৯ এএম
বিরামপুরে ক্লিনিকের সামনে থেকে ভ্যান চুরি
থানায় অভিযোগ

মোহাম্মদ রেজওয়ান আলী, বিরামপুর প্রতিনিধি, দিনাজপুর: বিরামপুরে ভ্যানে যোগে রোগী নিয়ে আসা ভ্যানটি দিন দুপুরে চুরি যাওয়ায় থানায় অভিযোগ। ২৫ ফেব্রুয়ারি দিনাজপুর বিরামপুরে রায়হান হেলথ কেয়ার হসপিটাল এন্ড রিসার্চ সেন্টারের সামনে থেকে স্বাস্থ্য ক্লিনিকের আসা রোগীর ভ্যান চুরির অভিযোগ উঠেছে বলে জানা যায়।

এবিষয়ে ভ্যানের মালিক হাচেন মিয়া বিরামপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানা যায়। উক্ত ঘটনা সরজমিনে জানা যায় যে ২৪শে ফেব্রুয়ারি বেলা ২:৩০ ঘটিকার সময় উপজেলাধীন ৪নং দিওড় ইউনিয়নের শিয়ালা গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা মৃত্যু আনিসুর রহমানের ছেলে হাচেন মিয়া তার অসুস্থ স্ত্রী কে নিয়ে বিরামপুর রায়হান হেলথ কেয়ার হসপিটাল এন্ড রিসার্চ সেন্টারে আসেন।

তার অসুস্থ স্ত্রীকে চিকিৎসা দেওয়ার জন্য  রায়হান ক্লিনিকের রিসিপশনে তার স্ত্রীকে ডাক্তার দেখায়। অল্প সময়ের মধ্যে বের হয়ে দেখতে পায় তার ভ্যান টি যথাস্থানে নেই। অজ্ঞাতনামা চোরেরা চুরি করে নিয়ে গেছে তার তিন চাকা চালিত অটো চার্জার ভ্যানটি।

অনেক খোঁজাখুঁজির পরে ও তার ভ্যানটি খুঁজে পাওয়া যায় নাই মর্মে হাসেন মিয়া বিরামপুর থানায় ২৫ শে ফেব্রুয়ারি ২০২৩ অভিযোগ দায়ের করেন। এ বিষয়ে ভ্যানচালক হাসেম মিঞার নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান,আমি রায়হান ক্লিনিকে আমার অসুস্থ রোগীকে নিয়ে এসে ভ্যানে চাবি দিয়ে ক্লিনিকের সামনে রেখে ভিতরে আমাদের স্ত্রীর চিকিৎসা নেই। ১০ মিনিট পরে এসে দেখি আমার চাবি দেওয়া ভ্যানটি যথাস্থানে নেই। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যায় নাই চোরেরা তার ভ্যানটি চুরি করে নিয়ে যায়। এ বিষয়ে বিরামপুর থানা অফিসার ইনচার্জ সুমন কুমার মহন্ত উক্ত বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

এ বিষয়ে রায়হান ক্লিনিক মোবাইল নাম্বারে আজ ১২টা ১ মিনিট সময়ে (০১৭৫২-২০১১১০) মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষ অবগত রয়েছেন তারাই ব্যবস্থা নিতে পারে এ বিষয়ে আমাদের কিছু বলার নেই বলে জানান। ম্যানেজারের সহিত উক্ত চুরির ঘটনায় তাদের মন্তব্য জানতে চাইলে তিনি জানান,এ বিষয়ে আমাদের করার কিছু নাই। এ বিষয়ে রায়হান ক্লিনিকের ওয়ার্ড মাস্টার আফতাব উদ্দিন জানান রোগীর সঙ্গে আসা গাড়ি ঘোড়া মালামালের দায় দায়িত্ব আমাদের নেই বলে জানান। এ বিষয়ে ভুক্তভোগী রোগীদের নিকট জানতে চাইলে তারা জানান,উক্ত ক্লিনিকের কর্তৃপক্ষ ব্যবসা করেন। রোগীদের যানবাহনের নিরাপত্তা দেওয়াও একান্ত কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব ও কর্তব্য। উক্ত বিষয়ে সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জোর দাবি জানান।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image