• ঢাকা
  • শনিবার, ২১ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৪ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

নতুন প্রজন্মের এক সম্ভাবনাময় অভিনেত্রী আনিকা তাবাসসুম


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০১:১৮ পিএম
নতুন প্রজন্মের এক সম্ভাবনাময়
অভিনেত্রী আনিকা তাবাসসুম

জাকির হোসেন আজাদী: নতুন প্রজন্মের এক সম্ভাবনাময় স্বপ্নবাজ প্রতিশ্রুতিশীল অভিনেত্রী আনিকা তাবাসসুম। তিনি টেলিভিশন এর বিভিন্ন নাটক টেলিফিল্মে নিরলস কাজ করে চলেছেন। তার স্বপ্ন তিনি এখন নিজেকে বড় পর্দায় দেখতে চান। সেই লক্ষ্যে অনুশীলন করছেন নিরবিচ্ছিন্নভাবে। অচিরেই নিজেকে যুক্ত করবেন চলচ্চিত্রে। এই বিষয়ে তাঁর সঙ্গে দীর্ঘ আলাপ হয়। তখন তিনি তাঁর জীবনের নানা বিষয় তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে কনফিউজড, হতাশাগ্রস্ত ও কিছু না করার মতো বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন ছিলাম। আমার সাথে কেউ মিশতো না, সবাই  ফান করতো, আমি বার বার ভেঙে পড়তাম। পড়াশুনা পড়লেও ভালো করতে পারতাম না। একমাত্র ভালবাসার জায়গা মা ও বাবার বিশ্বাস। স্কুলে হঠাৎ একদিন খেলাধুলার কমপিটিশন হল। মা আমাকে অনেক প্র‍্যাকটিস করালো। কাকতালীয় ভাবে আমি  স্কুলের  জাম্প প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়ে গেলাম। কেউ খুশি হল না, কিন্তু মাকে অনেক খুশি হতে দেখলাম। আমার অনুপ্রেরণাটি মূলত সেখান থেকেই আসলো যে আমার দ্বারাও কিছু করা সম্ভব।

তিনি আরও বলেন, "নিজেকে পরিবর্তন করা, নতুন করে শিখার শুরু। অধ্যবসায় বিষয়টা তখন থেকেই আসলো। আমার মায়ের আমাকে নিয়ে অনেক স্বপ্ন ছিল যাইহোক আমার নিজেকে প্রমান করার, যা জিদে পরিণত হয় এখন অবদি। আমি ও তিন বোন অর্থাৎ আমরা ৪ বোন ও মা, বাবা মিলে আমার পরিবার। সাথে আমার ছোট মামা আমার পার্সোনাল বডিগার্ড। এটাতো আমার প্রথম দুনিয়া যেখানে ভালবাসা ও স্নেহ ছাড়া কিছুই ছিল না। আমি সাধারণভাবে বেড়ে উঠেছি। 

ছোট বেলায় আমি পড়াশুনা করেছি উত্তরায় মাইলস্টোন কলেজে। এখন ইডেন মহিলা কলেজে ২য় বর্ষে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয় নিয়ে অধ্যয়নরত। আমি আমার কলেজে খেলাধুলা করি, বাস্কেটবল আমার পছন্দের খেলা। Bangladesh Basketball Fedaration এর সাথে যুক্ত আছি।

আমি প্রথমে অভিনয় নিয়ে পড়াশুনা করেছি। আমি অনেক স্বপ্নবাজ, আমার মধ্যে অভিনয় শিখার ইচ্ছা আছে। আমি নিজেকে সেভাবে প্রস্তুত করে চলেছি। আমি নাচ-নাটক করতাম। স্কুল কলেজের প্রোগ্রামগুলিতে এখনও আমার অংশগ্রহণের ছবি আছে। আমি প্রকৃতপক্ষে একজন সিনেমা প্রেমিকা। আমার গ্র্যাজুয়েশন শেষ হলে Film and Performance নিয়ে পড়াশুনা করারও ইচ্ছা আছে।

 আমি আশিষ খন্দকারের সাথে মঞ্চে কাজ করেছি একটা সময়। মঞ্চ একজন অভিনেতার প্রস্তুতের জায়গা। আমার মঞ্চে কাজ করতে সবচেয়ে বেশি ভাল লাগে। বর্তমান যুগ মর্ডান যুগ। আল্ট্রা মর্ডান এ যুগে আমরা খুবই ব্যস্ত নিজেদের ক্যারিয়ার  নিয়ে। আবার  করোনা মহামারির সময়ে সমগ্র বিশ্বে পড়াশুনার স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হয়েছে। আমার মনে হল অনেক দেরি হয়ে গেছে। আর নয় দেশের জন্য কিছু করতে হবে। তখন আমি বেশ কয়েক মাস থেকে বিভিন্ন  Underprviliged জায়গাগুলোকে নিয়ে Study করি। পর্যায়ক্রমে আমি ও আমার Icon প্রথম ব্যান্ড বিদ্যাসভা, উত্তরার বাউনিয়ায় স্থাপন করি ৫৫ জন ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে। মূল উদ্দেশ্য মানসম্মত ও গুনগত শিক্ষা প্রদান সুবিধা বঞ্চিত পরিবারের বাচ্চাদের জন্য। তখন আমরা দুটি ব্যান্ড Open করার পরিকল্পনা করছি। একটি ময়মনসিংহ ও আরেকটি খুলনায়। আমাদের ভাসমান অবস্থায় ঢাকা শহরের কয়েকটি জায়গায় কাজ করছি। 

বিদ্যাসভাকে নিয়ে আমার অনেক পরিকল্পনা। আমার ইচ্ছা সুবিধাবঞ্চিতদেরকে শিক্ষার আলো দিয়ে সঠিক পথ দেখানো। বিষদভাবে বললে আমরা নানা Vocational Training, Cultural Activation ও Training, ধর্মীয় নৈতিকতা, প্রাথমিক শিক্ষার পাশাপাশি করে থাকি। অভিনয়ের শুরুটা অনেক ভয়ানক এবং কঠিন, পথটা অনেক দূরের। ধৈর্য ও সাধনা করে যেতে হয় একজন অভিনেতার। আমিও সে পথে হেঁটেছি এমনকি হেঁটে চলছি। ভাল কিছু কাজ করার ক্ষুধা আমাকে বার বার তাড়া করে, মানুষকে নতুন কাজ উপহার দেয়ার আকাঙ্ক্ষা মনে। 

আমি অনেক অডিশন দিয়ে পরিচালকের কাছে নিজেকে প্রমাণ করেছি। আমি মনে করি অভিনয় সহজ না, আমাদের মনকে দৃঢ় ও ধৈর্য্যের মধ্যে রাখতে হয়। অনেক Practice করতে হয়, মেডিটেশন করতে হয়। অন্যরকম Hi Style এ জীবন যাপন, খাবারের পরিবর্তন সর্বোপরি ব্যক্তিগতভাবে শান্ত বিবেকের একজন মানুষ হতে হয়। বর্তমানদের জীবনকে ফলো করতে হয়। আমিও তার ব্যাতিক্রম নয়। অনেক Hard work করে কঠোর পরিশ্রম করেছি ও করছি যতদিন বেঁচে আছি।

(১)    আমি শিক্ষার্থী ইডেন মহিলা কলেজে ২য় বর্ষে অধ্যয়নরতা, 
(২)    আমি একজন অভিনয় আর্টিস্ট, আমি Film,, Drama, মঞ্চে, Web- এ কাজ করে যে ইনকাম করি তা দিয়ে অলাভজনক প্রতিষ্ঠান WBS এ ব্যায় করি,  যার মাধ্যমে  বিদ্যাসভা নামে সুবিধাবঞ্চিতদের স্কুল পরিচালিত হচ্ছে। টেলিভিশন মিডিয়াতে কাজের মাধ্যমে কিছু অভিজ্ঞ নির্মাতার সাথে কাজ করার সৌভাগ্য হয়। আমি  সৃজনশীল কাজ ও শিক্ষামূলক  বিষয় উপস্থাপনের মাধ্যমে মানুষের মনে জায়গা করে নিতে চাই। 

আমি একজন শিল্পের মানুষ হতে চাই। মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। এর জন্য আমি বিদ্যাসভা নামক অলাভজনক প্রতিষ্ঠান চালাচ্ছি। বিদ্যাসভার মাধ্যমে প্রাথমিক ও হাতে কলমে শিক্ষা প্রদানের কাজ করি। এ বাচ্চাদের উন্নত বিশ্বেও গুণগত মানসম্মত শিক্ষার আওতায় নিয়ে আসতে চাই, যাতে এরা নিজেদের সুশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে পারে।  আমার Vocational training Article Check up -এ বেশ কিছু ব্রান্ডের সাথে মডেলিংয়ের কাজ করেছিলাম। আমি কোন চরিত্রকে ছোট মনে করি না। আমি প্রথম কাজ করেছি এখনকার বিখ্যাত পরিচালক রায়হান বাকির পরিচালনায় একটি  Short Film এ। 

এরপর থেকেই আমার মধ্যে একের পর এক কাজ করার নেশা চলে আসে, এমন নেশা যার মধ্যে নিজেকে একজন আদর্শ অভিনেত্রী হিসেবে গড়ে তুলতে আগ্রহী হয়ে আছি। আমি ১২টা টেলিভিশন ধারাবাহিকে কাজ করেছি।  এর মধ্যে কাজলরেখা, গরম মশল্লা, রুবি হত্যা, টুইন ভিলেজ, ফ্যামিলি প্রবলেম ইত্যাদি। 

নাটক করেছি ৪০টার মত। যেমন: গরম ভাতে মঞ্চ, রাতের কথা, স্বামী আব্দুল রহিম, জারনৌকোবিরা অমানুষ, অবশেষন, অক্সিজেন, কেউ কথা রাখেনি ইত্যাদি। ওয়েব সিরিজ করেছি ৩টি। (১) Pram Rog Khandani Rog, (২) বরফ কলের গল্প, (৩)Batch 2003 (Film) (৪) মালড়া (Film)"।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

বিনোদন বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image