• ঢাকা
  • বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৯ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

কালাইয়ে সওজের জায়গা দখল করে দোকানঘর নির্মাণ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ০২:৫০ পিএম
কালাইয়ে সওজের জায়গা
দখল করে দোকানঘর নির্মাণ

কালাই প্রতিনিধি (জয়পুরহাট) : জয়পুরহাটের কালাইয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের আশপাশের অনেক খালি জায়গায়ই ইতোমধ্যে স্থায়ী-অস্থায়ী দোকানঘর নির্মাণ হয়েছে। স্থানীয় প্রভাবশালীরা এসব ঘর নির্মাণ করে ভাড়া দিয়েছেন। এতদিন যেসব দুর্বল ও অসহায় মানুষ এসব জায়গায় অস্থায়ীভাবে ব্যবসা করে আসছিলেন তাদেরকে সরিয়ে এক শ্রেণির প্রভাবশালী নিজেদের কব্জায় নিয়ে স্থায়ীভাবে দোকানঘর নির্মাণ করে দখলে নিয়েছেন। 

অথচ বাংলাদেশ সড়ক ও মহাসড়ক আইন অনুযায়ী, কোনো সড়ক বা মহাসড়কের ৬০ ফুটের মধ্যে কোনো স্থাপনা নির্মাণ করা যাবে না, এমন আইন থাকার পরেও সওজের কর্মকর্তারা কেন নিশ্চুপ এমন নানা প্রশ্ন উঠেছে জনমনে।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার পৌর সদরে বাসস্ট্যান্ডের পূর্ব ও পশ্চিমপার্শ্বে অবস্থিত সড়ক ও জনপথের বিপুল পরিমাণ সম্পত্তি রয়েছে।ভবিষ্যতে সড়ক আরও প্রসারিত করার কথা চিন্তা করে এই বিপুল সম্পত্তি ফেলে রাখার ফলে স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় গরীব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা টাকার বিনিময়ে টিনের দোকানঘর নির্মাণ করে দীর্ঘদিন থেকে দখল নিয়ে আছেন।যার যেখানে ইচ্ছা সেখানে দখল নিয়ে দোকানঘর নির্মাণ করে কেউ নিজে ব্যবসা করছেন, কেউ ভাড়া রেখেছেন, কেউবা দখলকৃত জায়গা বিক্রি করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। যে কেউ দেখলে মনে করবে গড়ে উঠা স্থাপনাগুলো মালিকাধীন জমিতে হয়েছে। যার ফলে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা দখল করতে করতে এখন শুধু প্রধান সড়কের পাশে নয়, দখল হয়েছে মূল রাস্তার তিন ফুট পর্যন্ত। এতে সাধারণ পথচারীদের রাস্তা পারাপারে চরম বিপাকে পড়তে হচ্ছে। নির্মাণকাজ এখনও অব্যাহত থাকায় স্থানীয়দের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

স্থানীয় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, কালাইয়ের স্থানীয় প্রভাবশালীদের কাছ থেকে লুৎফর রহমান ২০ হাজার টাকা, মানিক মিয়া ৪০ হাজার টাকা, আনতাজ খাঁ ৩৫ হাজার টাকা, সায়েম ০৭ হাজার টাকা, শহিদুল ইসলাম ১২ হাজার টাকা, রেজাউল হক ১৬ হাজার টাকা,
সিরাজুল ইসলাম ২০ হাজার টাকা, আব্দুস সবুর ৪৫ হাজার টাকা, সামছুল হক ১৮ হাজার টাকার বিনিময়ে সড়কের দু’ধারে থাকা সওজের জায়গা অবৈধভাবে দখল করে দোকানঘর নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। যারা এসব দোকানঘর ক্রয় করেছেন, কাদের কাছ থেকে নেয়া হয়েছে জিজ্ঞেস করলে তাদের কেউই মুখ খুলতে সহজে রাজি নয়।

পৌর বাজারের সবজি ব্যবসায়ীদের দাবি, সড়ক ও জনপথের জায়গাটি দখলে নিলেও সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে কোনো বাঁধা দেয়া হয়নি এবং সরকার দলীয় নেতাদের জোর সুপারিশে তারা আর দখলমুক্ত করতে আসেননি। সরকারি সম্পদ রক্ষার দায়িত্ব যাদের, তারাই যদি উদাসীন থাকেন, তাহলে অন্যকারো অসুবিধা থাকার কথা নয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জান্নাত আরা তিথি বলেন,‘সড়কের জমি কেউ দখল করে বিক্রি করতে পারবেন না এবং সড়ক বিভাগ যখন চাইবে তখন উচ্ছেদ করবে। কেউ যদি টাকা দিয়ে এই জায়গা ক্রয় করে দোকানঘর নির্মাণ করেন তা হলে তিনি ভুল করবেন।

জয়পুরহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহীঃ প্রকৌশলী সৌম্য তালুকদার বলেন, ‘ইতোপূর্বে সওজের জায়গা দখলমুক্ত করতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। কিন্তু সম্ভব হয়ে উঠেনি। সওজের জায়গায় অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করতে খুব শিগশিরই পদক্ষেপ নিয়ে দখলমুক্ত করা হবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image