• ঢাকা
  • বুধবার, ২০ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

স্কুলের খরচ কমাতে যুক্তরাজ্যে ‘সপ্তাহে ৩ দিন ক্লাস’


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: সোমবার, ১৫ আগষ্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০১:৩৬ পিএম
স্কুলের খরচ কমাতে
সপ্তাহে ৩ দিন ক্লাস

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাজ্যে খরচ সামলিয়ে তহবিল প্রবাহিত রাখতে স্কুল সপ্তাহে ৩ দিন খোলা রাখার বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে। কারন স্কুলশিক্ষকদের বেতন বাড়ছে, একই সঙ্গে আশঙ্কা করা হচ্ছে বিদ্যুৎ বিল ৩০০ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে।

ইউক্রেন যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে পুরো ইউরোপেই জ্বালানি ও বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। এরই মধ্যে সংকটে পড়েছে অনেক দেশ। যুক্তরাজ্যেও অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে বিদ্যুতের দাম। এমন পরিস্থিতিতে বিদ্যুৎ সাশ্রয় করতে ও বাড়তি খরচ এড়াতে শিশুদের সাপ্তাহিক স্কুলের দিনও কমিয়ে আনার বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে দেশটিতে।

সেপ্টেম্বর থেকেই যুক্তরাজ্যের স্কুলশিক্ষকদের বেতন বাড়ছে, একই সঙ্গে আশঙ্কা করা হচ্ছে বিদ্যুৎ বিল এরই মধ্যে ৩০০ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে। ফলে খরচ সামলিয়ে তহবিল প্রবাহিত রাখার উপায়গুলো নিয়ে আলোচনা করতে এই গ্রীষ্মের ছুটিতে প্রধান শিক্ষক, ট্রাস্টি ও গভর্নরদের ‘সংকট সভা’ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

স্কুলের খরচ সামাল দেয়ার নানাদিক নিয়েই ‘সংকট সভায়’ আলোচনা চলছে।

তবে ক্রিয়েটিভ ট্রাস্টের প্রধান নির্বাহী মার্ক জর্ডান বলেছেন যে বিদ্যুৎ বিলের খরচ কমাতে স্কুলে সপ্তাহে তিন দিন ক্লাসের বিষয়ে আলোচনা করতে তিনি শুনেছেন।

জর্ডানের ক্রিয়েটিভ এডুকেশন ট্রাস্ট যুক্তরাজ্যের পূর্ব ও পশ্চিম মিডল্যান্ডস ও নরফোকের ১৭টি স্কুল পরিচালনা করে যেখানে পড়াশোনা করছে ১৩ হাজার ৫০০ শিক্ষার্থী।

তিনি নিজের ট্রাস্ট সম্পর্কে বলেছেন, এরই মধ্যে তারা খরচ কমাতে একটি শিক্ষক নিয়োগ স্থগিত করছে এবং স্কুল ভবনগুলোর একটি পরিকল্পিত প্রকল্প বাতিলে বাধ্য হতে পারে।

সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাজ্যের স্কুলগুলো পর্যাপ্ত বিনিয়োগ পাচ্ছে না। ফলে অনেক শিক্ষকও খরচ কমাতে সাপ্তাহিক স্কুলের দিনের সংখ্যা কমিয়ে আনার পক্ষপাতি।

এসেক্সের সাউথেন্ড হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষ ড. রবিন বেভান বলেছেন, ‘যদি এরই মধ্যে চার দিন স্কুল খোলা রাখার পরিকল্পনা না করা হয়, তবে অবশ্যই তা বিবেচনা করা হবে।’

শুধু স্কুলই নয়, যুক্তরাজ্যে সামনের শীতে জানুয়ারিতে শিল্প-কারখানা ও সাধারণ পরিবারগুলোর জন্যও সাময়িকভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়া হতে পারে।

দেশটির কর্তৃপক্ষ বলছে, ‘সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির’ বিষয় মাথায় রেখে সরকারি পরিকল্পনার অংশ হিসেবে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু করার পরও সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ ব্যবহারের ছয় ভাগের এক ভাগ ঘাটতি থাকবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image