• ঢাকা
  • বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৭ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

বৈশাখের তাপদাহে অস্থির চলনবিলাঞ্চলের জনজীবন  


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১২:২৯ পিএম
বৈশাখের তাপদাহে
অস্থির চলনবিলাঞ্চলের জনজীবন  

হেলালুর রহমান জুয়েল, চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি : বৈশাখের তীব্র দহনে অস্থির হয়ে পড়েছে চাটমোহরসহ চলনবিল অঞ্চলের জনজীবন। একটু শীতলতার খোঁজে ছুটে ফিরছে মানুষ। রাস্তাঘাটে কমে গেছে মানুষের চলাফেরা। সেই সাথে অসহায় হয়ে পড়েছে প্রাণীকুল। আম কাঠাল-পাঁকা গরমে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে মানুষ। তীব্র তাপদাহ আর অসহনীয় গরমে ঘরে বাইরে কোথাও যেন স্বস্তি মিলছে না। অনেকেই স্বস্থির আশায় গাছের ছায়ায় আশ্রয় নিচ্ছেন। একইসাথে চলছে বিদ্যুতের ভয়াবহ লোডশেডিং।
দুঃসহ গরমে সকলেরই হাঁসফাঁস অবস্থা। সূর্যের প্রচন্ড তাপদাহে গলে যাচ্ছে রাস্তার পিচ,বেঁকে যাচ্ছে রেললাইনও।  

রবিবার চাটমোহর রেলওয়ে স্টেশনের পশ্চিমে রেল ক্রসিংয়ে একটি মালবাহী ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত হলে প্রায় ৩ ঘন্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। তাতালো সূর্য যেন গরম ঢালছে। দিনে মাথার উপর সূর্যের প্রখর রোদের তাপ আর রাতের বেলায় ঘরের ভেতর ভ্যাপসা গরম। হিমেল বাতাশ মিলছে না কোথাও দিনে বা রাতে।

তীব্র এ গরমে সাধারণ মানুষ বের না হওয়ায় আয় কমেছে খেটে খাওয়া মানুষদের। স্বল্প আয়ে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। প্রচন্ড খরায় ঝরে পড়ছে আম ও লিচুর গুটি।

চাটমোহর পৌর শহরের অটোভ্যান চঅলক আঃ কাদের বলেন,রোদের তেজ অনেক বেশি। একটু গাড়ি চালালেই শরীর জ্বলতে শুরু করে। এমন গরম আগে কখনও দেখিনি। তার উপরে রোজা রেখেছি। পানির তৃষ্ণা পাচ্ছে কিন্তু কিছু করার নেই। অপরদিকে রোদের তাপে লোকজন বাসা থেকে বের হচ্ছে না। ফলে ভাড়াও তেমন পাচ্ছি না। আবার জিনিসের দাম বেশি। সব মিলিয়ে অবস্থা খুবই খারাপ আমাদের।

ঈদের বাজারে আসা গৃহবধূ নাইমা খাতুন বললেন,প্রচন্ড গরম হওয়ায় বাইরে বের হওয়ায় অনেক কষ্ট হয়। তারপরও ।েিদর কেনাকাটা তো করতে হবে। নিরুপায় হয়ে বের হয়েছি। এ সময়ে বৃষ্টি হলে অনেক ভালো হত।

এদিকে প্রচন্ড গরমে হিটস্ট্রোকে আক্রান্ত হচ্ছে অনকে। শিশুদের ডায়রিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। 

চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মতিউর রহমান বলেন,বেশ কয়েকদিন থেকে তীব্র রোদের দাপট। এতে শিশুরা বেশিরভাগ নানা রোগ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। এ ছাড়াও বয়স্ক মানুষেরা গরমের কারনে বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসছেন। রোদের তীব্রতার কারণে আমরা বেশি করে খাবার সেলাই পানি খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছি।
 

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image