• ঢাকা
  • সোমবার, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৮ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সকলকে একসাথে কাজ করার আহবান:  ইন্দিরা


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:৩৫ পিএম
নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সকলকে একসাথে কাজ
মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা

নিউজ ডেস্ক : মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, নারী নির্যাতন এটা কোন দেশে একক সমস্যা নয়। এটা বৈশ্বিক সমস্যা। নারী নির্যাতন মানবাধিকার লঙ্গন করে। সময়ের পরিবর্তনের সাথে নারী নির্যাতনের ধরণও পরিবর্তিত হচ্ছে। প্রতি তিনজনে একজন নারী তার জীবন পরিক্রমায় শারীরিক, মানসিক বা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়। নারীর প্রতি সহিংসতা ও বাল্যবিয়ে সামাজিক সমস্যা এবং  নারীর অধিকারের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধ।  

প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সরকারের সাথে সকলকে একসাথে কাজ করার আহবান জানিয়ে বলেন, সরকারের সাথে বেসরকারী সংস্থা, উন্নয়ন সহযোগী, নাগরিক সমাজ, রাজনৈতিক সংগঠন, স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সংগঠন, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান, কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ এবং গণমাধ্যম ঐক্যবদ্ধ হয়ে সচেতনা তৈরির মাধ্যমে নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ করতে হবে। 

প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা ঢাকায় হোটেল সোনারগাঁও এ মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, জাতিসংঘ বাংলাদেশ এবং এলসিজিওয়েজ এর যৌথ উদ্যোগে ১৬ দিন ব্যাপী আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান এবং ন্যাশনাল ডায়ালগে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মানিত সচিব জনাব মো: হাসানুজ্জামান কল্লোল। বিশেষ অতিথি হিসাবে ছিলেন বাংলাদেশের নিযুক্ত ইউএন রেসিডেন্ট কোঅর্ডিনেটর গোয়েন লুইস এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডেন দূতাবাসের মান্যবর রাষ্ট্রদূত মিজ আলেকজান্ড্রা বার্গ ভন লিন্ডে। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জনাব মো: মুহিবুজ্জামান।

প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারী উন্নয়ন, ক্ষমতায়ন ও নারীর প্রতি সহিংসতারোধে বিভিন্ন নীতি, আইন, কৌশল ও কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। উন্নয়নের সকল ক্ষেত্রে নারীরা দক্ষতার সাথে কাজ করছে।

২৫ নভেম্বর, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস ও  জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে ১৬ দিনব্যাপী প্রচারাভিযান ২০২১ উৎযাপন জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতার বিরুদ্ধে সক্রিয় ১৬ দিন একটি আন্তর্জাতিক প্রচারণা। যা নারীদের প্রতি সকল ধরনের সহিংসতা প্রতিরোধ ও বিলোপ এর জন্য ”নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস”২৫শে নভেম্বর থেকে শুরু করে ১০ই ডিসেম্বর- আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে শেষ হয় । নারীর প্রতি সহিংসতাকে মানবাধিকারের সাথে সম্পর্কিত করা এবং এ ধরনের সহিংসতা যে মানবাধিকার লঙ্ঘন তার উপর গুরুত্ব আরোপ করার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রতি বছর নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস এবং জেন্ডর ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধ পক্ষ পালিত হয়।  

বিশ্বের অন্যান্য দেশের সাথে সাথে বাংলাদেশেও প্রতি বছর আরম্ভরপূর্ণভাবে এই দিবস এবং জেন্ডার ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধ পক্ষ পালিত হয়। সময়ের সাথে প্রগতির পথে নারীদের অবস্থা, অবস্থান এবং অগ্রগতির চিত্র উপস্থাপনের জন্য প্রতি বছর আন্তর্জাতিকভাবে একটি প্রতিপাদ্য/ স্লোগান নেওয়া হয়। ২০২২ সালের জন্য আন্তর্জাতিক প্রতিপাদ্য হলো: “Orange the World: Unite! Activism to End Violence against Women &  Girls” ‘‘সবার মাঝে ঐক্য গড়ি, নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করি’’। 

২৫ শে নভেম্বর, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস ও জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে ১৬ দিনব্যাপী প্রচারাভিযান পক্ষ পালনের জন্য বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, উন্নয়নসহযোগী প্রতিষ্ঠান, এনজিও, সিভিল সোসাইটির উদ্যোগে বিভিন্ন ধরণের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। 

জেন্ডারভিক্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে আমাদের সাথে ভিডিও ম্যাসেজের মাধ্যমে যুক্ত হয়েছিলেন নেদারল্যান্ডের মান্যবর রাষ্ট্রদূত His Excellency, Mr. Anne van Leeuwen, বাংলাদেশে নিযু্ক্ত ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের মান্যবর রাষ্ট্রদূত His Excellency,Mr.Charles Whiteley, বাংলাদেশে নিযুক্ত অষ্ট্রেলিয়ার মান্যবর হাইকমিশনার H.E Mr. Jeremy Bruer। বাংলাদেশে নিযুক্ত বৃটিশ হাইকমিশনার  His Excellency, Mr. Robert Chatterton Dickson.

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন  মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর ও সংস্থার প্রধানগণ।  এছাড়াও মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও যুগ্মসচিববৃন্দ। বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দ, বেসরকারী সংস্থা ও উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ; নাগরিক সমাজের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন মিডিয়ার প্রতিনিধিবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে জেন্ডারভিত্তিক  সহিংসতা প্রতিরোধে  প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। প্যানেল আলোচনাটি সঞ্চালন করেন ইউএনডিপি বাংলাদেশ এর জেন্ডার স্পেশালিস্ট শারমিন ইসলাম।

প্যানেলিস্ট হিসেবে ছিলেন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা  পারভীন, আইন ও বিচার বিভাগের যুগ্ম সচিব উম্মে কুলসুম, DFAT এর হেড অব ডেভেলপমেন্ট কোঅপারেশন মিজ Kate Sangster, ব্রাকের   পরিচালক   নবনীতা   চৌধুরী  এবং   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তাসলিমা ইয়াসমিন। অনুষ্ঠানে পরিবর্তনের দূত নামক শিরোনামে নারী নেতৃত্ব এবং সক্রিয়তার উপর ভিডিও বার্তা প্রদান করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দূতাবাসের ৭ জন নারী রাষ্ট্রদূত।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

নারী ও শিশু বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image