• ঢাকা
  • সোমবার, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৫ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

মেক্সিকোতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেখ রাসেল দিবস পালিত


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১১:১৮ এএম
মেক্সিকোতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে
শেখ রাসেল দিবস পালিত

নিউজ ডেস্ক : মেক্সিকো সিটিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস ১৮ অক্টোবর তারিখে  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের ৫৯ তম জন্ম বার্ষিকী  ‘শেখ রাসেল দিবস’ যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করে। এবারের প্রতিপাদ্য ছিল “শেখ রাসেল: দীপ্তিময়, নির্ভীক নির্মল দুর্জয়”। বাংলাদেশ দূতাবাস, মেক্সিকো সিটিস্থ চাপুলতেপেকের বসকোতে অবস্থিত ‘একিলিস সেরডন’ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের  প্রায়  ২৬০ জন শিশুদের  সাথে ব্যপক উৎসাহ আর উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করে।

অনুষ্ঠানের প্রারম্ভে বিদ্যালয়টির মহাপরিচালক আনা মারিয়া ভেলেনসিয়া আনতেলে তার স্বাগত বক্তব্যে তার প্রতিষ্ঠানে শেখ রাসেল দিবস পালন করবার জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আরো বলেন যে এ ধরণের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা নতুন একটি দেশ, তার সংস্কৃতি এবং  শেখ রাসেলকে নিয়ে জানার সুযোগ লাভ করলো। 

এর পরে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের জাতীয় পতাকা উপস্থাপনের পাশাপাশি ভেরাক্রুজ রাজ্যের ঐতিহ্যবাহী 'লা বাম্বা' নৃত্য সহ সংগীত এবং নৃত্যের সমন্বয়ে চিত্তাকর্ষক এবং মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপস্থাপন  করে। এছাড়া কিছু শিক্ষার্থী বাংলাদেশ,  তার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও উন্নয়ন সম্পর্কিত তথ্যসম্বৃদ্ধ  সংক্ষিপ্ত  বক্তব্য প্রদান করে।

রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম  তার  বক্তব্যে শেখ রাসেলের হৃদ্যতা, মহানুভবতা এবং দিবসটির তাৎপর্য সম্পর্কে উপস্থিত সকলকে অবহিত করেন । অংশগ্রহণকারী সকল শিশুদের মাঝে শেখ রাসেলের জীবনী সম্বলিত একটি লিফলেট বিতরন করার পাশাপাশি জন্মদিন উপলক্ষ্যে কেক কাটাসহ উপস্থিত সকলকে আপ্যায়নের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের প্রথম পর্যায়ের সমাপ্তি ঘটে।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্যায়ে,  দূতাবাসের  সকল কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের উপস্থিতিতে রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম শহীদ শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর রাষ্ট্রদূত এবং কাউন্সেলর দিবসটি উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রেরিত বাণীসমূহ পাঠ করেন।অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হতে প্রাপ্ত শেখ রাসেলের উপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। অতঃপর শেখ রাসেল-এর জীবন ও কর্মের উপর আলোচনা পর্বে উপস্থিত সকলে স্বতস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন।   

রাষ্ট্রদূত ইসলাম তার বক্তব্যে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট মর্মান্তিকভাবে হারিয়ে যাওয়া নিষ্পাপতার প্রতীক শেখ রাসেলের সংক্ষিপ্ত তথা প্রেরণাদায়ী জীবনকে স্মরণ করেন। তিনি আরও বলেন, তার স্মৃতি শিশুদের নিরাপত্তা বিধানে ও তরুণ প্রজন্মের মধ্যে মূল্যবোধ জাগ্রত করণে সকলকে অনুপ্রাণিত করে যার ধারাবাহিকতায় কমিউনিটি উন্নয়নসহ শিক্ষায় প্রযুক্তিগত প্রভূত অগ্রগতি সাধিত হয়েছে যা বাংলাদশের অগ্রগতি ও উন্নয়নেরই  পরিচায়ক।

পরিশেষে, শেখ রাসেল ও জাতির পিতাসহ তাঁর পরিবারের সকল শহীদ সদস্যদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা, দেশ ও জাতির অগ্রগতি এবং সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটির পরিসমাপ্তি ঘটে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image