• ঢাকা
  • রবিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৭ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডে ড. গাজী হাসান কামালকে পুনরায় চেয়াম্যান নিয়োগ


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বুধবার, ১৫ জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৫:১৩ পিএম
ড. গাজী হাসান কামালকে পুনরায় চেয়াম্যান নিয়োগ
ড. গাজী হাসান কামাল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ: মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ময়মনসিংহের প্রতিষ্ঠা কালীন চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. গাজী হাসান কামালকে একই বোর্ডের পুনরায় চেয়াম্যান নিযুক্ত করা হয়েছে। তিনি পিআরএল গমনের পূর্বদিন (০৯/০১/২০২৪ তারিখ) পুনরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করবেন বলে প্রজ্ঞাপণে উল্লেখ করা হয়।

মহামান্য রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের কলেজ শাখা-২ এর উপসচিব চৌধুরী সামিয়া ইয়াসমীন-এর গত ১৪ জুন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এই নিয়োগাদেশ দেয়া হয়। মাত্র ৩৩জন কর্মকর্তা-কর্মচারি দিয়ে নবগঠিত বোর্ডের সর্বোত্তম ফলাফল ও সেবা দেয়ার মাধ্যমে বোর্ডের অফিস ও জমি ক্রয়ের প্রয়োজনীয় অর্থ যোগান, প্রবেশপত্র অনলাইনে প্রেরণ, প্রশ্ন ও খাতা নির্ভুলভাবে দেখাসহ বোর্ডের নানা কর্মকান্ডে সফলতার পুরষ্কারস্বরূপ দ্বিতীয় মেয়াদে ড. গাজী হাসান কামালকে চেয়ারম্যান নিযুক্ত করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়।

ময়মনসিংহ নগরীর খাগডহর এলাকায় দু'টি ভাড়া বাড়িতে ৩৩জন জনবল ও সরঞ্জামাদি নিয়ে বৈশ্বিক মহামারী করোনা বিপর্যয়কে পদদলিত করে সর্বকনিষ্ঠ শিক্ষাবোর্ড হওয়া সত্তে¡ও ২০২১ সালের এসএসসিতে প্রথম ও দেশসেরা ফলাফলের গৌরব অর্জন করে নয় বোর্ডের মাঝে মর্যাদাকে এক অনন্য উচ্চতায় সমাসীন করে। যা দেশবাসীরও নজর কেড়েছে।

দ্বিতীয় মেয়াদে চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি, উপ-মন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী এমপি ও সচিব মোঃ আবু বকর ছিদ্দীকসহ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞা জানান ময়মনসিংহ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. গাজী হাসান কামাল। এক প্রতিক্রিয়ায়
এই বোর্ডকে একটি সেরা বোর্ডে রূপান্তরের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিবেন বলে আশ্বাস দেন তিনি ।

ড.গাজী হাসান কামাল ময়মনসিংহ জেলার সদর উপজেলায় ১৯৬৫ সালের ১০ জানুয়ারী জন্মগ্রহণ করেন। শৈশব ও কৈশোরের দুরন্তপনা পেরিয়ে ১৯৮১ সালে টাঙ্গাইল জেলার বিন্দুবাসিনী সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক এবং ১৯৮৩ সালে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় কৃতিত্বের সহিত প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হওয়ার গৌরব অর্জন করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ময়মনসিংহ সরকারী আনন্দ মোহন কলেজ থেকে ১৯৮৬ সালে অর্থনীতিতে স্নাতক এবং ১৯৮৭ সালে অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট (আইএইচএসএস)
থেকে তিনি এমএস ডিগ্রী লাভ করেন।
 
১৪তম বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারের সদস্য হিসেবে তিনি ১৯৯৩ সালে বেগম রোকেয়া কলেজে অর্থনীতির প্রভাষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। তাঁর কর্মদক্ষতা, আন্তরিকতা ও পেশার প্রতি অনুরাগের কারণে শিক্ষা বিভাগ তাঁকে ২০০১ সালে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর, ২০০৫ সালে এসোসিয়েট প্রফেসর এবং ২০১৩ সালে প্রফেসর হিসেবে পদোন্নতি দিয়ে সম্মানীত করে। তিনি ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ স্টাডিজ এর একজন গর্বিত সদস্য। আইবিএস থেকে ২০০৮ সালে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। ২০১৫-২০১৭ সাল পর্যন্ত সুনামের সাথে সরকারী আনন্দ মোহন কলেজে ভাইস প্রিন্সিপালে'র দায়িত্ব পালন করেন।

অত্র কলেজে অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এবং ভাইস প্রিন্সিপাল থাকাকালীন চারবার তিনি শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। কলেজের শতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানের প্রধান সমন্বয়ক হিসেবে বলিষ্ঠ নেতৃত্বে মনমুগ্ধকর সফল অনুষ্ঠান উপস্থাপন করেন তিনি। কর্মজীবনের বিভিন্ন সময়ে এনএইএম, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় এবং ডিএসএইচ ই থেকে
একাধিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। তাঁর চারটি উল্লেখযোগ্য গবেষণা প্রবন্ধ স্বনামধন্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকাশিত হয়। টীমওয়ার্কে আত্মবিশ্বাসী খ্যাত সহকর্মীদের মতামত গুরুত্বের সাথে বিবেচনা করেন এবং তাঁদের মূল্যায়ন করেন তিনি।

শিক্ষাজীবনে তিনি ক্যাব স্কাউট এবং রোভার স্কাউটের সদস্য ছিলেন। ময়মনসিংহ অঞ্চলে স্কাউটের চেয়ারম্যান হিসেবে গুরুত্ব ও যতেœর সাথে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। ময়মনসিংহ নগরীর বাউন্ডারি রোডে'র (বিশেষ শিশুর জন্য) ওয়েলফেয়ার স্কুল এর মতো সামাজিক উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত থাকতে ভালোবাসেন এই গুণীজন। দেশীয় শিক্ষা ব্যবস্থাকে সমৃদ্ধ করার লক্ষ্যে
তিনি নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়া সফর করেন।

অর্জিত জ্ঞান ও দক্ষতার মাধ্যমে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থার অধিক প্রসার ও গুণগত মান উন্নয়নের স্বপ্ন দেখেন তিনি। সততা, ধৈর্য্য ও নিরলস পরিশ্রমী হওয়ায় কর্মক্ষেত্রে সফলতা ও সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। ২০১৭সালের ৩১ ডিসেম্বর নব প্রতিষ্ঠিত ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদান করেন প্রফেসর ড.গাজী হাসান কামাল। তিনি ময়মনসিংহের মুসলিম ইনস্টিটিউটের একজন সম্মানিত সচিব।

সচেতন নাগরিক সমাজ মনে করে ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ড নিজস্ব স্থাপনা প্রয়োজনীয় লোকবল এবং সরঞ্জামাদি সমৃদ্ধ হলে ফলাফলে আরও চমক আনতে পারবে।

ঢাকানিউজ২৪.কম / মো. নজরুল ইসলাম/কেএন

শিক্ষা বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image