• ঢাকা
  • রবিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২৭ নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

রাশিয়া থেকে কম দামে জ্বালানি তেল কেনাছে চীন


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ২১ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০২:১৪ পিএম
মে মাসে প্রতিদিন রেকর্ড ১১ লাখ ব্যারেলে পৌঁছেছে
কম দামে জ্বালানি তেল কেনাছে চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:  রাশিয়া থেকে কম দামে জ্বালানি তেল কেনা বাড়িয়ে দিয়েছে চীন। তেল পরিবহনের তথ্য এবং জ্বালানি ব্যবসায়ীদের বরাত দিয়ে এই খবর জানিয়েছে রয়টার্স। ইউক্রেনে আগ্রাসন শুরুর পর পশ্চিমা ক্রেতারা রাশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্য করা থেকে বিরত থাকতে শুরু করায় শুন্যস্থান পূরণ করতে এগিয়ে এসেছে চীন।

বিশ্বের বৃহত্তম তেল আমদানিকারক দেশটি রাশিয়ার সরবরাহ কমানোর এক মাস পর এই পদক্ষেপ নিয়েছে। মস্কোকে প্রকাশ্যে সমর্থন করার আশঙ্কায় এবং সম্ভাব্যভাবে তার রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানিগুলো নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়ার আশঙ্কায় এই বিলম্ব করেছে বেইজিং।

ভর্টেক্সা অ্যানালিটিক্সের তথ্য অনুযায়ী চীনের সমুদ্রপথে রাশিয়ার তেল আমদানি মে মাসে প্রতিদিন রেকর্ড ১১ লাখ ব্যারেলে পৌঁছেছে। এই বছরের প্রথম তিন মাসে তা ছিল প্রতিদিন সাত লাখ ৫০ হাজার ব্যারেল আর ২০২১ সালে ছিল প্রতিদিন আট লাখ ব্যারেল।

এশিয়ার শীর্ষ পরিশোধন কোম্পানি সিনোপেক কর্পোরেশনের বাণিজ্যিক শাখা ইউনিপেক আমদানিতে নেতৃত্ব দিচ্ছে। এর সঙ্গে রয়েছে চীনের প্রতিরক্ষা কংলোমারেট নরিনকোর শাখা ঝেনহুয়া ওয়েল। রয়টার্সের হাতে আসা এক নথিতে দেখা গেছে, রুশ তেল চীনে আমদানিতে বড় প্রতিষ্ঠান হয়ে উঠছে হংকংয়ে নিবন্ধিত কোম্পানি লিভনা শিপিং লিমিটেড।

তবে এই বিষয়ে সিনোপেক, ঝেনহুয়া এবং লিভনা কোনও মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। ইউক্রেনে আগ্রাসন শুরুর পর পশ্চিমা ক্রেতারা রাশিয়া ছাড়তে শুরু করলে শুন্য হওয়া স্থান পুরণে এগিয়ে আসে এসব প্রতিষ্ঠান। এই আগ্রাসনকে রাশিয়া ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ বলছে।

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ আরও কয়েকটি বড় তেল ক্রেতা দেশ আগ্রাসন শুরুর পরেই রাশিয়ার তেল কেনা নিষিদ্ধ করে দেয়। রুশ তেল কেনার ওপর নিষেধাজ্ঞাসহ আরেক ধাপের নিষেধাজ্ঞা চূড়ান্ত করতে কাজ করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। ইউরোপীয় অনেক পরিশোধন কোম্পানি ইতোমধ্যে রাশিয়া থেকে তেল কেনা বন্ধ করে দিয়েছে। নিষেধাজ্ঞা এড়াতে কিংবা নেতিবাচক প্রচার থেকে রক্ষা পেতে তারা এই পদক্ষেপ নিয়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন রুশ তেলের দাম কমে যাওয়ায় কেনা বেড়েছে। আগ্রাসন শুরুর আগের তুলনায় প্রতি ব্যারেলে প্রায় ২৯ ডলার কম দামে তেল কিনতে পারছে চীনা ক্রেতারা।

ঢাকানিউজ২৪.কম /

আর্ন্তজাতিক বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image