• ঢাকা
  • সোমবার, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ; ১৫ জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image
website logo

জলঢাকায় নতুন কারিকুলামের মূল্যায়ন আলোচনা ও অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত 


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: শনিবার, ০৪ নভেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১২:০১ পিএম
জলঢাকায় নতুন কারিকুলামের মূল্যায়ন আলোচনা ও
অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত 

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি: ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেনীর নতুন কারিকুলামে বাৎসরিক সামষ্টিক মূল্যালয়ন বিষয়ে আলোচনা ও অভিভাবক করেছে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার ধর্মপাল ইউনিয়নের খেরকাটি উচ্চ বিদ্যালয়।

বৃহস্পতিবার জলঢাকা উপজেলার ধর্মপাল ইউনিয়নের খেরকাটি উচ্চ বিদ্যালয়ের হলরুমে বিদ্যালয় কতৃর্ক আয়োজিত ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেনীর নতুন কারিকুলামে বাৎসরিক সামষ্টিক মূল্যালয়ন বিষয়ে আলোচনা সভা ও অভিভাবক সমাবেশ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জাহিনুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আরিফুজ্জামান শাকিল,বক্তব্যে রাখেন বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান,শিক্ষক তোহিদুল ইসলাম,সাধনা রানী,বাবলুর রহমান, মোশারফ হোসেন,অভিভাবক রহমআলী প্রমুখ। 

সভায় প্রধান অতিথি নতুন শিক্ষাক্রম নিয়ে অপপ্রারে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন,২০৪১ সালের স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে স্মার্ট নাগরিক গড়ার কোন বিকল্প নেই।

ভবিষ্যতে দ্রুত পরিবর্তনশীল পৃথিবীর সাথে খাপ খাওয়াতে হলে শিক্ষার্থীদের শুধু পাঠ্যবই মুখস্থ করার পারদর্শী নাগরিক তৈরী করলে চলবে না। আমাদের এমন নাগরিক দরকার যে পাঠ্য বিষয়বস্তু সক্রিয় শিখনের মাধ্যমে অনুধাবন করে আত্নস্ত করবে যেন তা পরে প্রয়োজন মতো প্রয়োগ করতে পারে এবং হাতে কলমে কাজ শিখে দক্ষ নাগরিক হবে। তিনি আরো বলেন শিক্ষার্থীদের হতে হবে দেশ প্রেমিক কিন্তু বিশ্ব নাগরিক,প্রতিযোগিতার বদলে সহযোগিতা করতে পারদর্শী এবং পরিবর্তনের সাথে নিজের যোগ্যতার রুপান্তর ঘটাতে সক্ষম। নতুন শিক্ষাক্রম তেমন স্মার্ট নাগরিক তৈরির লক্ষ্যে কাজ শুরু করছে।

সভার সভাপতি প্রধান শিক্ষক বলেন শিক্ষার্থীরা এখন আগের চেয়ে বেশী পড়বে,নিজেরা সক্রিয় ভাবে পরবে,শিখবে। গ্রুপ ওয়ার্ক করে আবার তা নিজেরাই উপস্থাপন করবে।শুধু শিক্ষা নয়,দক্ষতাও অর্জন করবে।আর মূল্যায়ন হবে প্রতিটি কাজের। আবার ষান্সাসিক মূল্যায়ন,এবং বার্ষিক মূল্যায়নও হবে।কাজেই পরীক্ষা ঠিক থাকছে কিন্তু পরীক্ষার ভীতি থাকছে না
পরীক্ষায় উত্তীর্ন হওয়া এবং না হওয়াাও আছে।শুধু তাই নয় পারদর্শীতার ৭ স্কেলে তাদের রির্পোট কার্ড আছে।

তিনি আরো বলেন নতুন শিক্ষাক্রম ২০৪১ সালের স্মার্ট বাংলাদেশের স্মাট নাগরিক তৈরী করবে। এরা হবে সৎ, মানবিক,
সহমমর্মী, সৃজনশীল, উৎপাদনক্ষম ও উদ্যোগী।এ শিক্ষার্থীরা শুধু চাকুরী করবেনা, নিজেরাই উদ্যোক্তা হবে চাকুরির সুযোগ সৃষ্টি করবে।

খারিজা গোলনা দীঘির পাড় বি এল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে একই আলোচনা সভা হলরুমে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাফফর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সামশুল আলম,বক্তব্য রাখেন,সহকারী প্রধান শিক্ষক রউফুল আলম,শিক্ষক আশা লতা,শরিফুল ইসলাম,অভিভাবক ডাঃ রমজান আলী প্রমুখ।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

আরো পড়ুন

banner image
banner image