• ঢাকা
  • শনিবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ২১ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
  • সরকারি নিবন্ধন নং ৬৮

Advertise your products here

banner image

ক্ষমতাসীন দলের নেতা-মন্ত্রীদের কাছে আদালত অসহায় : রিজভী


ঢাকানিউজ২৪.কম ; প্রকাশিত: বুধবার, ০৪ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৩:৪৯ পিএম
ক্ষমতাসীন দলের নেতা-মন্ত্রী
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী

ডেস্ক রিপোর্টার: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেছেন, হাজি সেলিমের বিদেশ পাড়ি দেওয়ার ঘটনায় এটাই প্রমাণিত হয়েছে, ক্ষমতাসীন দলের নেতা-মন্ত্রীদের কাছে আদালত অসহায়। তিনি বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য সাজাপ্রাপ্ত হাজি সেলিম বিদেশ যেতে পারলেও সাবেক প্রধানমন্ত্রী অসুস্থ খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য সরকার রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে দেশের বাইরে যেতে দিচ্ছে না।

৪ মে, বুধবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

রিজভী বলেন, দুর্নীতির মামলায় সর্বোচ্চ আদালতের রায়ে ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি, যার বিরুদ্ধে ভূমি দখল, বুড়িগঙ্গা দখলসহ গডফাদারের যাবতীয় বৈশিষ্ট্যমণ্ডিত হাজি সেলিম রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনায় সগৌরবে বীরদর্পে গত শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিমানবন্দর দিয়ে থাইল্যান্ড চলে গেছেন। দুর্নীতির মামলায় হাজি সেলিম আত্মসমর্পণ না করেই দেশ ছেড়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল গণমাধ্যমের কাছে স্বীকারও করেন।

তিনি বলেন, হাজি সেলিমের আগেও এক্সিম ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি, সিকদার গ্রুপের এমডি রন হক সিকদার ও তার ভাই দিপু হক সিকদার রোগী সেজে ২০২০ সালের ২৫ মে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ব্যাংকক যান। পুলিশের তালিকায় ওয়ান্টেড ব্যাংকপাড়ার ত্রাস দুই ভাই সরকারের ওপর মহলের অনুমোদন নিয়েই দেশ ছাড়েন। আবার কিছুদিন পর রন হক সিকদার যখন দেশে আসেন তখন বিমানবন্দর থেকে আটক নাটকের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে সরকারের হাইকমান্ডের ‘মমতায়’ তার জামিন হয়ে যায়।

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, অথচ দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী, চারবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী গুরুতর অসুস্থ বেগম খালেদা জিয়াকে কথিত দুর্নীতির মিথ্যা মামলায় বন্দী রেখে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ঠেলে দেওয়ার পরও বিদেশে তার চিকিৎসার জন্য অনুমতি দেওয়া হয় না। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের বোর্ড এবং তার পরিবার বারবার আবেদন-নিবেদন করলেও বিনা ভোটের মন্ত্রী-এমপিদের দেশনেত্রীকে নিয়ে উপহাস কটাক্ষের ধারাবর্ষণ থেমে নেই।

রিজভী অভিযোগ করেন, শেখ হাসিনা আবারও প্রমাণ করলেন শুধু রাজনৈতিক কারণে ও প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী করে রেখেছেন। তাকে তিলে তিলে নিঃশেষ করতেই বিদেশে উন্নত চিকিৎসা গ্রহণের জন্য যেতে দেওয়া হচ্ছে না। তিনি বলেন, অবিলম্বে দেশনেত্রীকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য যাওয়ার অনুমতি না দিলে এই নিশিরাতের মিথ্যাবাদী সরকারকে আর ছাড় দেবে না জনগণ।

আইন যদি সবার জন্য সমান হয় তাহলে কোন আইনে সাজাপ্রাপ্ত হাজি সেলিম চিকিৎসার জন্য বিদেশ গেলেন, প্রশ্ন রাখেন রিজভী।

তিনি আরও বলেন, ১৪ বছর আগে বিচারিক আদালতে হাজি সেলিম দণ্ডিত হলেও এখন পর্যন্ত একদিনও জেল খাটতে হয়নি। আর সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিচার শেষ হওয়ার আগেই তাকে জোর করে জেলে রাখা হয়েছে। নিম্ন আদালত হাজী সেলিমকে ১৩ বছর কারাদণ্ড দিলেও উচ্চ আদালত কমিয়ে ১০ বছর করেছেন।

অন্যদিকে খালেদা জিয়ার মামলায় নিম্ন আদালতের দণ্ড উচ্চ আদালতে গণভবনের নির্দেশে প্রতিহিংসামূলকভাবে বাড়ানো হয়েছে, যা আদালতের ইতিহাসে নজিরবিহীন। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর হাজি সেলিমকে কখনো জেলে যেতে হয়নি। নিম্ন আদালতে দণ্ডিত হওয়ার পর উচ্চ আদালতে রিট করে তিনি বারবার জামিন পেয়ে গেছেন। এভাবেই দেশের বিচার বিভাগকে ধ্বংস করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার।

রিজভী বলেন, অচিরেই হয়তো জাতি জানতে পারবে, রাষ্ট্রপতি হাজি সেলিমকে ক্ষমা ঘোষণা করেছেন।

ঢাকানিউজ২৪.কম / কেএন

রাজনীতি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ

banner image
banner image